১:১৬ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৭, বুধবার | | ২৭ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

মৌলভীবাজারে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু

০৫ অক্টোবর ২০১৭, ০২:৪৮ পিএম | রাহুল


তোফায়েল আহমেদ পাপ্পু, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মজিদপুর গ্রামে এক অন্তসত্ত্বা গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।  গৃহবধূর শ্বশুর বাড়ির লোকজন এই মৃত্যুকে আত্মহত্যা বললেও তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করছেন নিহতের পরিবারের লোকজন।  বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। 

নিহতের শ্বশুর বাড়ির লোকজন সূত্রে জানাযায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের মজিদপুর গ্রামের নুর মিয়ার ছেলে দুবাই প্রবাসী জিতু মিয়ার সাথে ৭ মাস আগে একই উপজেলার টেংরা ইউনিয়নের কাছারি গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী আব্দুল মন্নানের মেয়ে শাহিনা বেগমের (২০) বিয়ে হয়।  বিয়ের পর স্বামী প্রবাসে চলে গেলে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সাথে ঝগড়া হত।  গত ৩ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকাল ৪ টার দিকে শাহিনা বেগম নিজের ঘরের দরজা আটকে ঘুমোতে যান। 

বিকাল ৫ টার দিকে শ্বাশুরী তাকে ডাকাডাকি করেও সাড়া না পেয়ে দরজা খুলেন।  এসময় তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান।  পরে শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।  তিনি অন্তসত্ত্বা ছিলেন। 

নিহতের ননদ সাজনা বেগম বলেন, আমার মা বিকেলে তাকে তার ঘরে ডাকতে যান।  সাড়াশব্দ না পাওয়ায় তিনি আমাকে ডাকেন।  পরে আমরা দরজা খুলে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। 

এদিকে নিহতের পরিবারের দাবি, শাহিনাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।  তাদের দাবি, ৩-৪ মাস ধরে শাহিনার উপর শ্বাশুরী ও ননদ মিলে তার বিরোদ্ধে বিভিন্ন অপবাদ তুলছিল।  শাহিনা বিষয়টি ফোনে স্বামীকে জানালেও স্বামী বিষয়টি নিয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।  সোমবার একই বিষয় নিয়ে তাদের সাথে ঝগড়া হলে শাহিনা তার স্বামীকে বিষয়টি জানান।  এসময় স্বামী তাকে দেশে ফিরে এসে তালাক দেয়ার হুমকি দেন।  স্বামীকে বিষয়টি জানানোয় তারা শাহিনাকে হত্যা করেছে বলে দাবি করেছেন নিহতের মা মনোয়ারা বেগম। 

তিনি বলেন, শ্বাশুরী ও ননদের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে শাহিনা তার স্বামীর কাছে আমাদের বাড়িতে এসে থাকার অনুমতি চায়।  কিন্তু বাপের বাড়ি আসলে স্বামী দেশে ফিরে এসে তাকে তালাক দেয়ার হুমকি দেয়।  নির্যাতনের বিষয়টি স্বামীকে জানানোর কারণে শ্বাশুরী ও ননদ মিলে তাকে হত্যা করেছে।  আমার মেয়ে মারা যাওয়ার খবর তারা রাতে মোবাইল ফোনে আমাকে জানায়। 

এব্যাপারে রাজনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শ্যামল বনিক সাংবাদিকদের বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল (বুধবার) বিকেলে লাশ নিহতের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।  ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।