৮:০২ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | | ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

মিস ওয়ার্ল্ডের সেরা ৪০-এ জেসিয়া

১২ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:২২ এএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতার ৬৭তম আসরের ‘ফাইনাল ফোর্টি’তে জায়গা করে নিলেন বাংলাদেশের জেসিয়া ইসলাম।  হেড টু হেড চ্যালেঞ্জে বিভাগের গ্রুপ সিক্সে জয়ী হয়ে তিনি পৌঁছে গেছেন সেরা ৪০-এ। 

আয়োজকরা জানান, বিশ্বের ১২০ প্রতিযোগীর মধ্যে নির্বাচিত হয়েছে ফাইনাল ফোর্টি।  এর মধ্যে হেড টু হেড চ্যালেঞ্জে ছয়টি গ্রুপের প্রতিটিতে বিজয়ীরা সরাসরি পৌঁছে গেছেন সেরা ৪০-এ।  জেসিয়া তাদেরই একজন।  তাকে এখন অনেকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।  তাদের আশা, কয়েকদিনের মধ্যে গ্র্যান্ড ফিনালের মঞ্চে দেখা যাবে ১৮ বছরের এই তরুণীকে। 

ফেসবুকে জেসিয়ার পেজে শনিবার (১১ নভেম্বর) রাত ৯টায় এক স্ট্যাটাসে বলা হয়েছে, ‘১২০ সুন্দরীর মধ্যে জেসিয়া এখন শীর্ষ ৪০-এ। ’ হেড টু হেড চ্যালেঞ্জে কে কোন গ্রুপে থাকবেন তা নির্ধারিত হয়েছে ড্রয়ের মাধ্যমে।  এবারই প্রথম বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতায় যুক্ত হয়েছে এই বিভাগ। 

হেড টু হেড চ্যালেঞ্জে গ্রুপ সিক্সে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৭’ জেসিয়া ইসলামের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা, কানাডা, ইথিওপিয়া ও বটসওয়ানার সুন্দরীরা।  কিন্তু ভোটে তাদের টপকে সেরা হলেন ঢাকার মেয়ে। 

জেসিয়াকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, নারীর ক্ষমতায়নে কী করার পরিকল্পনা আছে? উত্তরে তিনি বলেন, ‘নারীদের জন্য বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে একটি ইনস্টিটিউট গড়ার পরিকল্পনা আছে আমার।  এখানে তাদের কর্মদক্ষতা বাড়ানোর শিক্ষা দেওয়া হবে।  এর মাধ্যমে তারা স্বনির্ভর হতে পারবে ও তাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস জন্মাবে।  কারণ স্বনির্ভরতা তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক নিয়েও কথা বলেন জেসিয়া।  তিনি বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে চাইলে চমৎকারভাবে ব্যবহার করা যায়।  তবে এই প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের অনেকে এর অপব্যবহার করে। ’


আইবিসি ফ্যাশন পার্টিতে অন্য প্রতিযোগীদের মধ্যে জেসিয়া ইসলাম ক’দিন আগে আইবিসি ফ্যাশন পার্টিতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সুন্দরীদের উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়।  এখানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন জেসিয়া।  এছাড়া অন্যদের পাশাপাশি চীনের শেনজেনে নতুন গড়ে ওঠা ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস সেন্টার (আইবিসি) ঘুরে দেখেছেন তিনি। 

এরপর শিমেলং অ্যাকুয়া স্কুলে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে অংশ নেন প্রতিযোগীরা।  এখানে পশু সম্পদ উন্নয়নের মাধ্যমে মহাসাগর সংরক্ষণ প্রকল্প সম্পর্কে ধারণা পেয়েছেন তারা।  পার্কে বেড়ানো ছাড়াও চতুর্থ চীন আন্তর্জাতিক সার্কাস উৎসবে যোগ দিয়েছেন জেসিয়াসহ সবাই। 


জেসিয়া ইসলাম আগামী ১৮ নভেম্বর চীনের সানাইয়া সিটি এরেনায় হবে বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতার ফাইনাল।  ওইদিন নতুন মিস ওয়ার্ল্ডের মাথায় মুকুট পরিয়ে দেবেন বর্তমান বিশ্বসুন্দরী স্টেফানি দেল ভালে। 

‘মিস ওয়ার্ল্ড’-এর ৬৭তম আসরে অংশ নিতে গত ২০ অক্টোবর চীনের গুয়াংজু বিমানবন্দরে পৌঁছান জেসিয়া।  তার মাধ্যমে ১৬ বছর পর বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতায় দেখা যাচ্ছে লাল-সবুজ পতাকা।