৬:২৪ এএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার | | ৯ সফর ১৪৪০


মহেশখালীতে পানি নিস্কাশন না হওয়ায় জনগনের চরম দুর্ভোগ

০৭ আগস্ট ২০১৮, ০৭:৫২ এএম | জাহিদ


সরওয়ার কামাল, মহেশখালী প্রতিনিধি : মহেশখালীতে প্রায় ২শত বছরের পুরানো ভরাটকৃত খাল খননের নিতান্তই প্রয়োজন। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পুরাতন জেঠিঘাট থেকে শুরু হওয়া এমপি রশিদ মিয়ার ব্রিজ, তেলিপাড়া, বরুনাঘাট, খুইশ্যামার পাড়া, দক্ষিণ নলবিলা, সিপাহীর পাড়া, কুলাল পাড়া, নিজতালুক পাড়া, ধুয়া পাড়া বেয়ে সর্বশেষ বড় মহেশখালী শুকুরিয়া পাড়া গিয়ে শেষ হয়েছে। 

উক্ত পুরানো খাল সরকারী একোয়ারভুক্ত খালের পরিধি চওড়া বড় আকারে ছিল কিন্তু তৎসময় থেকে অদ্যাবদি পযর্ন্ত কোন ধরনের ড্রেসিং না হওয়ায় বেওয়ারিশ হয়ে পড়ে আছে কিন্তু কিছু প্রভাবশালী মহল লোভ সামলাতে না পেরে পুর্বের খালের পরিধি ভরাট করে ক্রমান্নয়ে দখলের মহোৎসব চলাচ্ছে বর্তমানে খালের পরিধি একদম জিরির মত হয়ে গেছে।  বর্ষাকাল আসলে ঠিকমত পানি নিস্কাশন না হওয়ায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে পার্শ্বস্থ ঘরবাড়ি, নিম্নাজ্চল প্লাবিত ও চাষী জমি নষ্ট হয়ে যাই। 

উক্ত পুরানো খালে উপর দিয়ে প্রায় ৯টি ব্রীজ স্থাপিত হয়েছে খোশ্যামার পাড়া, সিপাহীর পাড়া, বানিয়ার দোকান সংযুক্ত ব্রীজ, দেবাঙ্গপাড়া ও কুমারপাড়া সংযোগ ব্রীজ সহ অনেকটি ব্রীজ স্থাপিত হয়েছে। 

এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ নেতা মোহাম্মদ ফারুক বাদী হয়ে জনগনের স্বার্থে ভরাটকৃত খাল খনন ও প্রভাবশালী কর্তৃক দখলকৃত জায়গা মুক্ত করতে কক্সবাজার জেলা পরিষদ ও স্থানীয় দপ্তরে দরখাস্ত দায়ের করেছে এরপরেও এখনো পযর্ন্ত কোন সুরাহা হয়নি।