৭:২৯ পিএম, ১৮ জুন ২০১৮, সোমবার | | ৪ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

প্রেমিক উধাও

ময়মনসিংহে বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে স্কুলছাত্রী অনশন

১৩ মার্চ ২০১৮, ০৩:১০ পিএম | সাদি


মিজানুর রহমান, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায় প্রেমিকের বাড়িতে এক স্কুল ছাত্রী বিয়ের দাবিতে ১৩ দিন যাবত ধরে অনশন করে যাচ্ছে।  কিন্ত প্রেমিক ঘটনার দিন থেকেই উধাও হয়ে গেছে। 

জানা যায়, দুই বছর আগে গৌরীপুর উপজেলার হুমায়ুন নামে এক কলেজ ছাত্রের সাথে সুনামগঞ্জ জেলার তমা জান্নাত মুন নামে এক স্কুল ছাত্রীর মোবাইল ফোন দিয়ে পরিচয়ে গভীর প্রেম হয়।  পরে প্রেমিক বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মেয়েটিকে খবর দিয়ে তার বাড়িতে আসতে বলেন।  মেয়েটি আসার পর প্রেমিক নিজেই উধাও হয়ে যায়।  তবে স্ত্রীর মর্যাদা আদায় করতে ১৩ দিন ধরে অবস্থান করলেও মিলছেনা স্ত্রীর স্বীকৃতি। 

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ ) সকালে খোজ নিয়ে উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের পশ্চিম কাউরাট গ্রামের হযরত আলীর বাড়িতে ১৩ দিন যাবত ওই স্কুল ছাত্রী বিয়ের দাবিতে অবস্থান করছে বলে জানা গেছে।  স্থানীয়রা জানায়, প্রেমিকার নাম তমা জান্নাত মুন (১৫)।  সে ১০ম শ্রেণির ছাত্রী।  মুন সুনামগঞ্জের বিষমভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের লক্ষীরপাড় গ্রামের নুরুল ইসলামের কন্যা।  আর প্রেমিক হুমায়ূন (২৬) গৌরীপুর উপজেলার ময়লাকান্দা ইউনিয়নের পশ্চিম কাউরাট গ্রামের হযরত আলীর পুত্র। 

মুনের সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ১ মার্চ তার প্রেমিক হুমায়ূন বিয়ের কথা বলে মোবাইলে খবর দিয়ে তাকে গৌরীপুরে নিয়ে আসে।  ওইদিন সে সুনামগঞ্জ থেকে পূর্ব নির্ধারিত গৌরীপুর স্টেশনে আসার পর হুমায়ূনকে পায়নি।  এসময় তার প্রেমিককে মোবাইলে কল দিলে সে বলে তুমি বাড়িতে ফিরে যাও।  এখন তোমাকে বিয়ে করা সম্ভব নয়।  পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় মুন প্রেমিকের বাড়ি খুঁজে বের করে।  এসময় বাড়িতে গিয়েও প্রেমিক হুমায়ূনকে পায়নি। 

এদিকে স্ত্রী মর্যাদা পেতে সিদ্ধান্তে অনড় মুন।  তিনি নিরুপায় হয়ে ওইদিন থেকেই প্রেমিক হুমায়ুনের বাড়িতে অবস্থান শুরু করে।  তার সাফ কথা স্ত্রীর মর্যাদা না পেলে সে আত্মহত্যা করবে।  তার আর বাড়িতে ফিরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই।  অন্যদিকে প্রেমিক হুমায়ূনের পিতা হযরত আলী জানান, ঘটনার দিন থেকে তার পুত্র আত্মগোপনে রয়েছে।  এখন মেয়েটিকে বর্তমানে আমার বাড়িতে নিজ কন্যার আদরে রেখেছি।  এসময় তিনি বলেন মুনকে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য তার পিতাকে মোবাইলে অনুরোধ করা হলেও তাদের পক্ষ থেকে কেউ আসেননি।  ঘটনাটি নিষ্পত্তির চেষ্টা চালাচ্ছেন বলেও জানান হযরত আলী। 

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার ওসি দেলোয়ার আহমেদ বলেন, এ পর্যন্ত স্কুল ছাত্রী বিয়ের দাবিতে অনশন করছে এমন কোন খবর থানায় এখনো আসেনি।  আমি আজকেই স্থানীয় গনমাধ্যমকর্মীদের মুখে এ ঘটনার কথা শুনেছি।  তবে এলাকায় পুলিশ পাঠিয়ে ঘটনার খবর নিচ্ছি বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।