৯:৩৫ এএম, ২৫ আগস্ট ২০১৯, রোববার | | ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০




রাউজানে এইচএসসিতে র্শীষ স্থানে চুয়েট, উপজেলা জুড়ে ফল বিপর্যয়-পাসের হার ৪৭%

১৭ জুলাই ২০১৯, ০৭:১৮ পিএম | নকিব


প্রদীপ শীল, রাউজান প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামের রাউজানে আবারো কোনো  শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে শতভাগ পাসের হার নেই। 

২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে এমন চিত্র দেখা গেছে। 

কিন্তু গত বছর ২০১৮ সালের এই পরীক্ষায় তাও কোন প্রতিষ্ঠানে ছিল না  শতভাগ পাস।  চট্টগ্রামের শীর্ষ স্থানীয় কলেজগুলোর মধ্যে অন্যতম শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান হচ্ছে রাউজান উপজেলার চুয়েট স্কুল এন্ড কলেজ।  এবার একজন পরীক্ষার্থী ফেল হওয়া এই কলেজ আবারোও হারিয়েছে তাঁদের শতভাগ পাসের হার।  গত বছর চুয়েট স্কুলকে চকম দিয়ে সেরা ফলাফলে ছিল কদলপুর স্কুল এন্ড কলেজ । 

গতবার তাদের মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৪ জন।  তার মধ্যে পাস করেছেন ৪৩ জন।  সেই বছর তাদের পাসের হার ছিল ৯৭.৭৩%।   এই কলেজের ৪৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র পাস করেছেন ২৬ জন।  আর ফেল করেছেন ২০ জন।  তাদের এবছর পাসের হার ৫৬.৫২%! জনা যায়, বিনাজুরী নবীন স্কুল এন্ড কলেজ ২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন মাত্র ৭ জন। 

আর ফেলের জাগায় স্থান পেয়েছেন ১৯ জন।  গতকাল (১৭-জুলাই) ফলাফলে দেখা যায় রাউজান চুয়েট স্কুর এন্ড কলেজ থেকে মোট ১৬৬ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন ১৬৫ জন।  জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৮ জন।  মোট পাসের হার ৯৯.৪০% ।  কদরপুর স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ৪৬ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন ২৬ জন পাসের হার ৫৬.৫২% হারে পাস করেছে। 

গহিরা ডিগ্রী কলেজ থেকে মোট ২৮৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন ১২০ জন।  তাদের মোট পাসের হার ৪১.৬৭%।  হাজী বাদশা মাবিয়া কলেজ থেকে মোট ১০৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন ৪৬ জন।  তাদের মোট পাসের হার ৪৩.৮১%।  দেওয়ানপুর এস.কে.সেন.স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ৫৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছেন ৩৬ জন।  পাসের হার ৬৩.১৬%।  আশালতা  কলেজ থেকে ৫১ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করে ১৭ জন।  পাসের হার ৩৩.৩৩%।  অগ্রসার গার্লস ডিগ্রী কলেজ থেকে মোট ১২৬ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করে ৫৮ জন।  পাসের হার ৪৬.০৩%।  বিনাজুরী নবীন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ২৬ জন অংশগ্রহণ করে পাস করে ৭ জন।  পাসের হার ২৬.৯২%।  হয়রত ইয়াছিন শাহ পাবলিক কলেজ থেকে ১০৭জন অংশগ্রহণ করে পাস করেন ৩২ জন।  তাঁদের পাসের হার ২৯.৯১%। 

কুন্ডেশ্বরী গার্লস কলেজ থেকে মোট ৯৮ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করে ৫৪ জন।  পাসের হার ৫৫.১০%।  রাউজান সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে মোট ৮৫৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।  পাস করেন ৪০১ জন।  জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩ জন।  তাদের মোট পাসের হার ৪৬.৮৫%।  নোয়াপাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে মোট ৮০৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছেন ৩৪৫ জন।  তাদের পাসের হার ৪২.৩৯৬%। 

ইমাম গাজ্জালী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে মোট ৫৩৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছেন মোট ২২১ জন।  তাদের পাসের হার ৪১.৪৬%। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো: তৌহিদুল তালুকদার জানান, এবার ৩২৬২ জন পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে সারা রাউজানে পাস করেছেন মোট ১৫২৮ জন।  এতে পাসের হার কলেজে ৪৭% ও মাদ্রাসায় ১০০%। 

কলেজের চাইতে ফলাফলে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা বেশি ভালো ফলাফল অর্জন করেছে । 


keya