৫:৪৫ এএম, ২২ জুন ২০১৮, শুক্রবার | | ৮ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধসে ‘নিহত ১১’

১২ জুন ২০১৮, ১২:৪৩ পিএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় ভারী বর্ষণের ফলে পাহাড় ধসে মা-ছেলেসহ অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছেন।  বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন।  সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত পাহাড়ধসের এসব ঘটনা ঘটে।  নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কোয়ালিটি চাকমা পরিবর্তন ডটকমকে জানান, পাহাড়ধসে উপজেলার বুড়িঘাট ইউনিয়নের ধরমপাশা কার্বারিপাড়ায় একই পরিবারের চারজন, নানিয়ারচর ইউনিয়নের বড়কুল পাড়ায় চারজন ও ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের হাতিমারায় দু’জন নিহত হয়েছেন। 

নিহতদের মধ্যে নয়জনের নাম-পরিচয় জানা গেছে।  তারা হলেন- উপজেলার বুড়িঘাট ইউনিয়নের ধরমপাশা কার্বারিপাড়ার ফুলদেবী চাকমা (৫৫), তার মেয়ে ইতি দেওয়ান (১৯), পুত্রবধূ স্মৃতি চাকমা (২৩), নাতি আয়ুব দেওয়ান (দেড় মাস), নানিয়ারচর ইউনিয়নের বড়কূলপাড়ার সুরেন্দ্র লাল চাকমা (৫৫), তার স্ত্রী রাজ্য দেবী চাকমা (৫০), মেয়ে সোনালী চাকমা (১৩), নানিয়ারচর ইউনিয়নের বড়কূলপাড়ার মহিলা মেম্বার রত্মা চাকমার ছেলে রোমেন চাকমা (১৪) ও ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের মনতলা এলাকার বৃষকেতু চাকমা (৫৫)।  তবে ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের হাতিমারা গ্রামের হতাহত দু’জনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। 

স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাত ১১টার দিকে বুড়িঘাট ইউনিয়নের ধরমপাশা কার্বারিপাড়ার একটি পরিবার মাটিচাপা পড়ে।  এতে চারজনের মৃত্যু হয়। 

নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবদুল্লা আল মামুন তালুকদার জানান, পাহাড়ধসে বেশ কয়েকজনের মৃত্যুর খবর তারা পেয়েছেন।  ঘটনাস্থলে পুলিশ ও দমকল বাহিনী উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। 

স্থানীয়দের বরাতে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ জানান, পাহাড় ধসে ১১ জনের মত্যুর খবর পেয়েছি।  ধসের কারণে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক না থাকায় প্রশাসনের কর্মকর্তারা দুর্গত এলাকায় পৌঁছাতে পারছেন না।  এজন্য নিহত কিংবা নিখোঁজের সঠিক তথ্য জানাতে সময় লাগছে। 


এর আগে গতবছরের জুনে ভারী বর্ষণে রাঙ্গামাটির বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধসে চার সেনা সদস্যসহ অন্তত ১২০ জন নিহত হন।