১২:৩৫ এএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

‘রাজনীতিতে সৌজন্যবোধ হারিয়ে গেছে’

১৩ নভেম্বর ২০১৭, ০৭:৫৭ পিএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : বিল বোর্ড, সাইনবোর্ড, পোস্টারে সৌজন্যবোধ থাকলেও রাজনীতিতে সৌজন্যবোধ হারিয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। 

তিনি বলেন, ‘বিল বোর্ড, সাইনবোর্ড, ব্যানারে সৌজন্যবোধের ছড়াছড়ি থাকলেও রাজনীতিতে সেটা হারিয়ে গেছে।  রাজনীতিতে এখন মূল্যবোধ নেই।  আমরা চেষ্টা করছি রাজনীতিতে সৌজন্যবোধ, মূল্যবোধ ফিরিয়ে আনতে। ’

সোমবার (১৩ নভেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।  বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের উদ্যোগে এ আলোচনা আয়োজন করা হয়। 

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আগামী ১৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নাগরিক সমাবেশ করব।  সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ, আপনারা বিএনপির সমাবেশের সঙ্গে এটাকে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ বলে প্রচার করবেন না।  প্লিজ আমি আপনাদের কাছে মাফ চাচ্ছি।  আমরা কোনও পাল্টাপাল্টি সমাবেশ করতে চাচ্ছি না।  আমাদের সমাবেশ নিয়ে রাজনীতি করতে চাচ্ছি না।  যাতে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না হয় সেজন্য আমারা ১৮ তারিখ শনিবার দেখে সমাবেশ দিয়েছি। ’

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমাদের দেশে তারাই নীতিকথা বলে যারা বেশি দুর্নীতিবাজ।  এই দেশে যারা নষ্ট রাজনীতির সূচনা করেছে, যারা সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টির চেষ্টা করেছে, যারা জঙ্গিবাদে মদদ দিয়েছে তারা বলে রাজনীতির গুনগত মান পরিবর্তনের কথা।  ভুতের মুখে রামরাম...।  তাই নয় কি?’

২০১৪ সালের কথা মনে করিয়ে দিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘যারা আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়েছে, যারা বাসে, বাড়িঘরে আগুন দিয়েছে তাদের মুখে আজ গণতন্ত্র আর রাজনীতির গুনগত পরিবর্তনের কথা শোনা যায়। ’

এসময় মফস্বল সাংবাদিকদের সমালোচনা করে কাদের বলেন, ‘কিছু সাংবাদিক আছেন মফস্বলে যারা শুধু কার্ড গলায় ঝুলিয়ে, প্যাড হাতে নিয়ে চাঁদাবাজি করে।  তারা থানার ওসি, ভূমি অফিস, টিএনও অফিসে বসে থাকে।  অথচ তারা এক লাইন শুদ্ধভাবে লিখতেও জানেন না।  গ্রামের মানুষ সাংবাদিক নাম শুনলেই বলে উঠে সাংঘাতিক। ’

নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের আহব্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘কি কষ্ট করে সাংবাদিকরা জীবিকা নির্বাহ করে তা আমি জানি।  কারণ আমি নিজে একজন সাংবাদিক ছিলাম।  তথ্যমন্ত্রীকে বলব- খুবই মনযোগের সাথে, চেতনার সাথে, ভালবাসার সাথে দেখবেন বিষয়টি। ’

তথ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনও সংঘাতের পথ তৈরি করবেন না।  সুন্দরভাবে মানবিক দিক বিবেচনা করে বিষয়টি সমাধান করবেন। ’

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- প্রধানমন্ত্রীর তথ্যবিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব ওমর ফারুক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী প্রমুখ। 

Abu-Dhabi


21-February

keya