১০:২৯ এএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

‘রাজনীতি থেকে দূরে রাখতেই মামলা’

০৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ০২:১৭ পিএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনে বক্তব্য দিচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।  বক্তব্যে তিনি বলেছেন, ‘আমি কোন ধরনের ট্রাষ্টি বোর্ডের সদস্য ছিলাম না, কোন লেনদেনের সাথেও ব্যক্তিগত বা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমার কোন রকমের সম্পর্ক নেই।  রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে কাল্পনিক অভিযোগ এনে আমাকে মামলায় জড়িত করা হয়েছে। ’ এ সময় তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আদালতে ন্যায় বিচার পাওয়ার আশা করে তিনি। 

মঙ্গলবার (০৫ ডিসেম্বর) ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থনে ৭ম দিনের মতো বক্তব্য দিচ্ছেন খালেদা জিয়া। 

এর আগে দুই মামলায় আত্মসমর্পণ করে খালেদা জিয়া জামিনের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।  জামিন মঞ্জুরের পর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দিতে শুরু করেন। 

খালেদা জিয়া বলেন, ‘দুটি তহবিল গঠন বা পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয়ে তার বিন্দুমাত্র সংশ্লিষ্টতা নেই।  এমনকি বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ এ সংক্রান্ত কোন দালিলিক প্রমাণ আদালতে উপস্থাপন করতে পারেননি।  জিয়া পরিবারকে এবং জাতীয়তাবাদী দলকে হয়রানি করার প্রয়াস হিসেবে আমাকে মামলায় জড়ানো হয়েছে। ’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) ও তাঁর মন্ত্রিপরিষদের কতিপয় সদস্য আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা বক্তব্য প্রচার করেন।  তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ তার জবানবন্দীতে যে মনগড়া ও মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন তার সাথে ওই প্রচারণার একটি সামঞ্জস্যতা পাওয়া যায়।  যা থেকে প্রমাণ হয় হারুন অর রশিদকে বিশেষ উদ্দেশ্য এই মামলায় বাদী আবার একই সাথে তাকেই তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে কাজে লাগানো হয়েছে। ’

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী পক্ষ বিশেষ করে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর মন্ত্রিপরিষদের কতিপয় সদস্য প্রায়শই আমাকে জড়িয়ে জনসম্মুখে মিথ্যা বক্তব্য প্রচার করে।  আমি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের অনুকূলে কখনো কোন অর্থ নেইনি।  সাক্ষী হারুণ অর রশীদ একজন অনুসন্ধানকারীরা ও তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসাবে কোনো দালিলিক প্রমাণ ছাড়া আমার ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার উদ্দেশ্যে এইরূপ মনগড়া সাক্ষ্য দিয়েছেন। ’

এর আগে সকাল ১১টা ০৫ মিনিটে ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে উপস্থিত হোন।  সকাল সোয়া ১০টার দিকে তিনি গুলশানের নিজ বাসভবন ‘ফিরোজা’ থেকে আদালতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন।  এসময় বিএনপির বিপুল নেতাকর্মী সঙ্গে ছিলেন। 

গত ৩০ নভেম্বর আদালতে হাজির না হওয়ায় জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।  ওই দিন আদালতে খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেয়ার কথা ছিল।