১২:২৫ পিএম, ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২৩ শাওয়াল ১৪৪০




রাজবাড়ীতে শেষ সময়ে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা

২৯ মে ২০১৯, ১০:৫২ এএম | জাহিদ


এম.মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী :  ঈদুল ফিতর এর বাকী ৭দিন।  এই দিনটিকে ঘিরে মুসলমানরা তাদের ধর্মিয় সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে ব্যস্ত থাকেন।  তাই ঈদকে ঘিরে এ সময়টা তাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায় অনেকবেশি। সেই ব্যস্ততার মাঝে নতুন পোষাক নিতে বিভিন্নদোকানে ভির জমান। 

নতুন পোশাকে নিজেকে সম্পূর্ণ নতুন আঙ্গিকে সাজাতে এবং খুশির দিনটিকে সকলের সাথে ভাগাভাগী করে নিতে রাজবাড়ী জেলা শহরের প্রতিটি মার্কেটের, দোকান গুলোতে ক্রেতাদের ভিরে পুরো জমে উঠেছে রাজবাড়ীর ঈদ বাজার।  তবে নতুন ধরনের পোশাকের প্রতি চাহিদা রয়েছে সব ক্রেতাদের।  তবে অতি মাত্রায় গরমের কারনে ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে সুতি কাপরের পাশাপাশি সিনথেটিক কাপরের পোষাক। 

পোষাকের দাম ক্রেতাদের সাধ্যের মধ্যেই আছে, আবার কেউ বলছেন দামটা কিছুটাবেশি হলেও ভালেঅমানের কাপড় পাওয়া যাচ্ছে বাজারে।  পরিবারের সদস্যদের জন্য পছন্দের পোশাক কিনতে এসেছেন ক্রেতারা, কিনছেন বিভিন্ন ধরনের পোষাক তেমনি ভাল বিক্রি হওয়ায় খুশি ব্যবসায়ীরা। 

জেলা শহরের বড় কাপর বাজার,পাঁচতলা মার্কেট সহ বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা যায় প্রচন্ড গরম ও রোদ উপেক্ষা করে সকাল থেকে শিশু, বয়স্ক, নারী পুরুষরা কেনা কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তাতে মুখর হয়ে উঠেছে মার্কেট গুলো।  তবে প্রতিটি স্থানেই পুরুষের তুলনায় মহিলাদের উপস্থিতি একটু বেশি।  সব শ্রেনী পেশার মানুষ তাদের সাধ্যের মধ্যেই চেষ্টা করছে পছন্দের সামগ্রীগুলো কিনতে।  ক্রেতাদের কেউ কেউ বলছেনপোষাকের দাম হাতের নাগালে রয়েছেকেউ বলছেন একটু বেশি তবে ভালো বিক্রি করতে পেরে খুশিদোকানিরা। 

ঈদ বাজারে ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী সব ধরনের পোশাকের পসরা সাজিয়ে বসেছেন দোকানীরা এবং ড্রেসে শিশু বাচ্চাদের চাহিদার মধ্যে রয়েছে, ল্যাহেঙ্গা ফ্রক, র্স্কাট, প্লাজু।  মেয়েদের এবার ঈদে দেশি ও বিদেশি,ইন্ডিযয়ান , এর মধ্যে অরগেন্ডি থ্রী পিছ, জিপসি, গাউন, লেহেঙ্গা, স্কার্ট, প্লাজুসেট, টপস, থ্রী পিছ, তবে প্রচন্ড গরমের কারনে সুতি কাপরের প্রতি ঝোক রয়েছেবেশি।  ছেলে ও পুরুষদের চাহিদায় গেঞ্জি, টি-শার্ট, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, প্যান্ট ও লুঙ্গি এবং মহিলাদের সিল্ক, জরজেট, জামদানী, ধুপিয়ানী টাঙ্গাইল, দেশী তাঁতের শাড়ি ও জামদানী শাড়ি বেশ চাহিদা রয়েছে । তবে সুতির পাঞ্জাবি বিক্রি হচ্ছেবেশি জানালেন দোকানিরা। 

ক্রেতারা বলেন পরিবারের লোকজনের জন্য তারা ঈদের পোশাক কিনতে এসেছেন, তবে পোষাকের দাম নাগালের মধ্যে আছেবেচা বিক্রীও ভালো হচ্ছে ।  ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী সব ধরনের কাপর আছে বাজারে। 

বিক্রেতারা বলেন,প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বেচাকেনা ভাল হচ্ছে এবং মার্কেটে ক্রেতাদের ভির রয়েছে অনেক।  ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী সব ধরনের পোশাক রয়েছে তাদের দোকানে।  ঈদের দিন যতোই ঘনিয়ে আসবে তাদের বেচা-কেনাও ততো বাড়বে বলে জানান ব্যবসায়ীরা। 

রাজবাড়ী কাপর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন বলেন, প্রথমদিকে বেচাকেনা কম থাকলেও এখন বাজারে বিক্রি ভালো হচ্ছে, বাকী দিনগুলোতে বিক্রি ভালো হবে তাদের আশা তবে, শহরের যানজটের কারনে তাদের ঈদের বেচা-বিক্রিতে বড় একটা অন্তরায় হয়ে দ্বাড়িয়েছে।  তাদের দাবী কতৃপক্ষ যদি একটু আন্তরিক হয় তবে তারা এই ঈদে স্বাচ্ছন্দে ব্যবসা করতে পারবেন।