১১:২২ পিএম, ৫ মার্চ ২০২১, শুক্রবার | | ২১ রজব ১৪৪২




রোদ থেকে বাঁচতে

০৩ অক্টোবর ২০১৭, ০৫:০৯ পিএম | মোহাম্মদ হেলাল


এসএনএন২৪.কম : শরতের শেষ হতে চললো।  সময়টা শরৎকাল বলেই বুঝি আবহাওয়াটাও এমন খামখেয়ালি! এই ঝুম বৃষ্টি তো আবার একটু পরেই খটখটে রোদ।  রোদের মেজাজও একেবারে চরম।  আর কাজের প্রয়োজনে বাইরে তো বের হতে হয়ই।  কিন্তু বের হওয়ার আগে রোদ থেকে বাঁচতে আপনার সঙ্গে রাখতে হবে কিছু জিনিস।  কারণ রোদের কারণে আমাদের ত্বকে নানা ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে।  তাই বাইরে তো বের হবেনই, আর বের হওয়ার আগে সঙ্গে রাখুন এই জিনিসগুলো-

ছাতা
রোদ-বর্ষা দুই সময়েই ব্যবহার করা যাবে রঙিন ছাতা, বিশেষ করে মেয়েদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন রঙের বৈচিত্র্যময় ছাতা।  মেয়েরা একরঙা হিসেবে আকাশি, গোলাপি, বেগুনি ও নীল ছাতা বেছে নিতে পারেন।  এ ছাড়া লাল, হালকা সবুজ, হালকা কমলা, বিভিন্ন ফ্লোরাল বা ডট প্রিন্ট ও পাতার নকশা করা ছাতাও আছে।  মেয়েদের ছাতার মধ্যে ছয় ও আট শিক ছাতা বেশি চলছে।  ছাতা হ্যান্ডেলেও আছে বৈচিত্র্য।  কোনো হ্যান্ডেল গোলাকার, কোনোটা আবার চারকোনা।  ছেলেদের জন্য একটু হালকা শেডের মধ্যে হালকা নেভি ব্লু, হালকা সবুজ, সি গ্রিন, অ্যাশ এই রঙের ছাতাগুলো ভালো চলছে।  ছেলেদের ছাতার প্রিন্ট জিওমেট্রিক ও চেকের চাহিদা বেশি।  শিশুদের জন্য পাওয়া যায় নানা ধরনের কার্টুন আঁকা ছাতা।  আর রঙের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি বৈচিত্র্য এসব ছাতায়। 

সানস্ক্রিন
ত্বক সূর্য তাপের বিকিরণের জন্য পুড়ে যাওয়া, ত্বক নষ্ট হয়ে যাওয়া, অতিবেগুনী রশ্মির মতো ভয়ংকর বস্তু থেকে রক্ষা করা এবং ত্বকের ক্যান্সার থেকে বাঁচাতে এসপিএফ বা সান প্রটেকশন ফ্যাক্টর কাজ করে।  সানস্ক্রিন ক্রিম দ্বারাই আপনি এসপিএফ এর কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন।  আপনার ত্বক যদি সাধারণভাবে ১০ মিনিট সূর্যে থাকার পরই পোড়তে শুরু করে তাহলে আপনি এসপিএফ-১৫ মানের ভালো সানস্ক্রিন ক্রিম বা সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করে দেখতে পারেন।  দেখবেন, এসপিএফ-১৫ মানের ভালো সানস্ক্রিন ব্যবহার করার কারণে আপনি প্রায় ১৫০ মিনিট (১৫ গুণ বেশি সময়) রোদের মধ্যে থাকার পরও আপনার ত্বকে কোনো সমস্যাই হচ্ছে না। 

সানগ্লাস
চোখের সুরক্ষায় রাস্তার ধুলাবালি, পোকা-মাকড় ও সূর্যের ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি থেকে চোখকে বাঁচায় সানগ্লাস।  আমাদের দেশে বাইসাইকেল বা মোটরসাইকেল আরোহী তরুণদের জন্য সানগ্লাস অত্যন্ত জরুরি।  কারণ বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেল চলন্ত অবস্থায় বাতাসের ধুলাবালি এবং পোকা-মাকড় আমাদের চোখে এসে পড়তে পারে।  আর এসব ধুলাবালি ও পোকা-মাকড় থেকে রক্ষা করে সানগ্লাস।  সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি আমাদের চোখের কর্নিয়ার ও রেটিনার দারুণ ক্ষতি করে।  সানগ্লাস এই অতি বেগুনি রশ্মিকে শুধু আমাদের চোখ আসতে বাধা প্রদানই করে না বরং তা প্রতিহত করে।  তাই সানগ্লাস শুধু ফ্যাশনে নয়, চোখের সুরক্ষায়ও প্রয়োজন।