৬:৫৯ এএম, ১২ জুলাই ২০২০, রোববার | | ২১ জ্বিলকদ ১৪৪১




লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে যেতে পারেন

১৮ নভেম্বর ২০১৮, ১০:২০ এএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : যারা গাছপালা তথা প্রকৃতি ভালোবাসেন তারা যেতে পারেন লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে।  এ সংরক্ষিত বনাঞ্চলে গেলে আপনি দেখতে পারবেন নানা প্রজাতির গাছপালা ও পশু-পাখি। 

যা দেখথে পাবেন : জীববৈচিত্র্যে ভরপুর এই উদ্যানে দেখা মেলে নানা প্রজাতির বিড়ল পশুপাখির।  এই উদ্যানে ৪৬০ প্রজাতির দুর্লভ উদ্ভিদ ও প্রাণী রয়েছে।  তার মধ্যে চাপালিশ, সেগুন, আগর, জারুল, আকাশমনি, লোহাকাঠ, আওয়ালসহ ১৬০ প্রজাতির উদ্ভিদ।  ২০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী, ২৪০ প্রজাতির পাখি, ৬ প্রজাতির সরীসৃপ রয়েছে। 


উল্লেখযোগ্য বন্যপ্রাণীর মধ্যে হরিণ, লজ্জাবতী বানর, মুখপোড়া হনুমান, বনরুই গন্ধগোকুল, বাগডাশা, বনমোরগ, সজারু, অজগর সাপ, গুইসাপ, হনুমান, শেয়াল, মেছোবাঘ, চিতাবিড়াল, বনবিড়াল, কাঠবিড়ালী, বন্যকুকুর উল্লেখযোগ্য। 

এ ছাড়া রয়েছে পাহাড়ি ময়না, ধনেশ, মথুরা, সবুজ ঘুঘুসহ বিচিত্র নানা ধরনের পাখি।  লাউয়াছড়া উদ্যানই বিলুপ্ত প্রায় উল্লুকের সবচেয়ে বড় বিচরণ এলাকা। 

বনের সৌন্দর্যকে কাছ থেকে দেখার জন্য আছে তিনটি ট্রেইল।  এক, দেড় ও তিন ঘণ্টার ভিন্ন এই ট্রেইলগুলোতে ট্রেকিং করে খুব কাছ থেকে এই বনের রূপ উপভোগ করতে পারবেন। 


যেভাবে যাবেন : ট্রেনেই ঢাকা থেকে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে যাওয়ার সবচেয়ে ভালো মাধ্যম।  ঢাকা থেকে ট্রেনে করে শ্রীমঙ্গল যেতে কমলাপুর কিংবা বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশান হতে উপবন, জয়ন্তিকা, পারাবত অথবা কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনে যেতে পারেন।  শ্রেণিভেদে জনপ্রতি ট্রেনে যেতে ভাড়া ২৬৫ থেকে ১০০০ টাকা।  ট্রেনে যেতে সময় লাগে পাঁচ থেকে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা। 

বাসে করে ঢাকা থেকে শ্রীমঙ্গল যেতে ফকিরাপুল অথবা সায়েদাবাদ থেকে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা ভাড়ায় হানিফ এন্টারপ্রাইজ, শ্যামলী পরিবহন, সিলেট এক্সপ্রেস, এনা ইত্যাদি নন এসি বাস পাওয়া যায়।  বাসে যেতে সময় লাগে ৪ ঘণ্টার মতো।  শ্রীমঙ্গল পৌঁছে সেখান থেকে আপনার চাহিদা অনুযায়ী কোনো গাড়ি নিয়ে যেতে পারবেন লাউয়াছড়া উদ্যানে। 

আপনি চাইলে দিনে এসে দিনেই ফিরে যেতে পারবেন লাউয়াছড়া উদ্যানে থেকে।  আর থাকতে চাইলে শ্রীমঙ্গল শহরে গিয়ে থাকতে হবে। 


keya