১:৩২ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

লিবিয়ায় শিবচরের ২ যুবককে জিম্মি করে মুক্তিপন আদায়

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৬:২৭ পিএম | সাদি


মাতুব্বর শফিক স্বপন, মাদারীপুর : লিবিয়া থেকে ইটালী নেওয়ার কথা বলে শিবচরের দত্তপাড়ার ২ যুবককে জিম্মি করে প্রায় ২৫ লাখ টাকা মুক্তিপন  আদায়কারী মানব পাচারকারী চক্রের ১ নারী সদস্যসহ ৩ সদস্যকে লক্ষীপুর ও কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার করেছে শিবচর থানা পুলিশ। 

পুলিশ ও ভিকটিমদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের চর বাচামারা আদেল হাজীর কান্দি গ্রামের তারা মিয়া খলিফার ছেলে শাহিন ও তার চাচাতো ভাই রবিউল খলিফা ঢাকায় থাকা অবস্থায় লক্ষীপুরের আলমগীর হোসেন রিপন ও তার শ্যালিকা নয়ন আক্তারের সাথে পরিচয় হয়।  তারা শাহিন ও রবিউলকে ১০ লাখ টাকার বিনিময়ে ইটালী পাঠানোর প্রস্তাব করে।  শাহিন ও রবিউল পরিবারের কাছে জানালে তারা সম্মতি দিলে চলতি বছরের ১৪ মে ১০ লাখ টাকার বিনিময়ে প্রথমে তাদেরকে মিশর পাঠায় আলমগীর। 

গত ২১ জুন মিশর থেকে ইটালী নেওয়া জন্য তাদেকে লিবিয়া পাচার করে চক্রটি।  শাহিন ও রবিউলকে লিবিয়া নিয়ে ওই দালাল চক্রের আরো ৮/১০ জন সদস্য তাদেরকে আটক করে শারিরীক নির্যাতন চালায়।  নির্যাতনের ভিডিও পরিবারের কাছে দেখিয়ে তাদের কাছে মুক্তিপন দাবী করে চক্রটি।  মুক্তিপন না দিলে তাদেরকে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় তারা। 

ছেলের জীবন বাঁচাতে চক্রটির দাবীকৃত মুক্তিপনের টাকাও দেয় পরিবার দুটি।  এ পর্যন্ত বিকাশ ও ব্যাংকের মাধ্যমে কয়েক দফায় প্রায় ২৫ লাখ টাকা নিয়েও শাহিন ও রবিউলকে মুক্তি না দেওয়ায় গত ৬ সেপ্টেমবর ৪ জনকে আসামী করে শিবচর থানায় অভিযোগ করে শাহিনের বাবা তারা মিয়া খলিফা। 

অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত শনিবার গভীর রাতে লক্ষীপুর ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে শিবচর থানা পুলিশ।  এসময় মানব পাচারকারী চক্রের সদস্য আলমগীর হোসেন রিপন (৪০), তার শ্যালিকা নয়ন আক্তার (২৮) ও সামচুকে (৪২) গ্রেফতার করে পুলিশ।  গ্রেফতারকৃত বিকাশ এজেন্ট সামচুর বিকাশ একাউন্টে অস্বাভাবিক লেনদেনের তথ্য পেয়েছে পুলিশ।  গ্রেফতারকৃত আলমগীর লক্ষীপুর সদর উপজেলার চরমনসা গ্রামের মৃত নাজির আহমেদ খানের ছেলে, নয়ন আক্তার একই গ্রামের শাহিন আলমের স্ত্রী ও সামচু কুমিল্লার মুরাদনগরের পাঁচপুকুরিয়া গ্রামের ইসমাইল ক্বারীর ছেলে বলে পুলিশ জানায়। 

শিবচর থানার অফিসার ইনচার্জ জাকির হোসেন বলেন, এরা সংঘবদ্ধ একটি মানব পাচারকারী দল।  শিবচরের ২ যুবককে লিবিয়া জিম্মি করে এরা কয়েক দফায় মুক্তিপন নিয়েও ছাড়েনি।  আমরা অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা পেয়ে লক্ষীপুর ও কুমিল্লা থেকে তাদের গ্রেফতার করেছি।