৮:২৮ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার | | ২২ সফর ১৪৪১




শ্রীপুরে রোগী সেজে ভুয়া ডাক্তারকে ধরলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৪২ এএম | নকিব


আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর(গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ শ্বাসকষ্টের রোগী সেজে চিকিৎসা নিতে সেবা মেডিকেল হলের কথিত  ডাক্তাররের  কাছে যান তিনি। 

ডাক্তার রোগীর রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলেন।  সবকিছু বলার পর চিকিৎসা দিতে প্রস্তুত হন ওই কথিত ডাক্তার। 

এসময় ডাক্তার হওয়ার জন্য  সার্টিফিকেটসহ প্রয়োজনীয় বিষয়গুলো জানতে চাওয়া হয় ওই কথিত ডাক্তারের কাছে। 

এতে কিছু সার্টিফিকেট দেখান কথিত ওই ডাক্তার।  যেগুলোর বেশীর ভাগই অন্যের নামে। 

এভাবেই এক ভুয়া ডাক্তারকে হাতেনাতে ধরে আইনের আওতায় আনলেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এমডি শামসুল আরেফীন।  

১৫ সেপ্টেম্বর রবিবার রাত ৯টায় শ্রীপুর পৌর মুক্ত মঞ্চ সংলগ্ন স্থানে সেবা মেডিকেল হলে এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন তিনি। 

এসময় তাকে সহযোগিতা  করেন শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাঃ আবু বকর সিদ্দীক ও শ্রীপুর মডেল থানার পুলিশ । 

সাজাপ্রাপ্ত কথিত ডাক্তার কামরুল ইসলাম (৫০)-এর বাড়ী মাদারীপুর সদর উপজেলায়।  তবে বর্তমানে তিনি শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের পটকা গ্রামের বাসিন্দা।  

তার বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসা দেয়ার একাধিক ভুক্তভোগীর অভিযোগও রয়েছে বলে জানায় স্থানীয়রা। 

ভ্রাম্যমান আদালত  সুত্রে জানা যায়, ভুয়া সনদ দেখিয়ে নামের আগে ডাক্তার লিখে রোগীদের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন  কামরুল ইসলাম (৫০)।  এছাড়াও   বিভিন্ন পরীক্ষা করানোর জন্য রোগীদের কয়েকটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে পাঠাতেন তিনি।  এসময় কথিত ডাক্তার তার সকল অপরাধ আদালতের কাছে স্বীকার করেন।  পরে বাংলাদেশ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৫২ ধারায় কামরুল ইসলামকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয় ভ্রাম্যমান আদালত।   

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এমডি শামসুল আরেফীন জানান, ভুয়া ডাক্তার সেজে সাধারণ মানুষদের চিকিৎসার নামে ভোগান্তি সৃষ্টি করার দায়ে ওই কথিত ডাক্তারকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে।  চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে এমন অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করা হবে বলেও জানান তিনি।