১০:৩৬ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৭ সফর ১৪৪১




শ্রীপুরে স্পিনিং মিলে অগ্নিকান্ডে ২২ ঘন্টায় ৬ লাশ উদ্ধার

০৩ জুলাই ২০১৯, ০৬:৫৯ পিএম | নকিব


আলফাজ সরকার আকাশ,শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ: গাজীপুরের শ্রীপুরে অটো স্পিনিং মিল নামে একটি কারখানার তুলার গুদামে আগুন লাগার ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬জনে দাঁড়িয়েছে। 

৩ জুলাই বুধবার সকালে ৩জন ও বেলা সাড়ে এগারোটায় আরো দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। 

৬ জনের মধ্যে সকালে উদ্ধার হওয়া নিহতরা হলেন, উপজেলার দক্ষিণ ধনুয়া এলাকার জয়নাল হোসেনের ছেলে আনোয়ার (২৮) ও একই এলাকার  হাসান আলীর ছেলে শাহজালাল মিয়া (২৫)।  বেলা সাড়ে এগারোটা  দিকে কারখানার এসি প্ল্যান্ট থেকে যে দুই জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়  তারা হলেন- পাবনার আমিনপুর থানার নান্দিয়ারা গ্রামের কেরামত সরদারের ছেলে সুজন সরদার (৩০) এবং ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার  ভুবনপোড়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে মো. আবু রায়হান (৩৫)।  দু’জনই এসি প্ল্যান্টের শ্রমিক ছিলেন বলে জানা যায়। 

বাকি দুজন হলেন,কারখানার নিরাপত্তাকর্মী ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার উলুল গ্রামের আলা উদ্দিনের ছেলে রাসেল মিয়া (৩২) এবং স্পিনিং মিলের উৎপাদন কর্মকর্তা  গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার ভান্নারা গ্রামের শামসুল হকের ছেলে সেলিম কবির (৪২)। 

২ জুলাই মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ঘেঁষা নয়নপুর এলাকার ওই কারখানায় আগুন লাগে।  

এদিকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  এছাড়াও স্থানীয় এমপি ইকবাল হোসেন, শ্রীপুর পৌর মেয়র আলহাজ্ব  আনিসুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও (ভারপ্রাপ্ত) ফাতেমাতুজ জহুরা, শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লিয়াকত আলী, মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার হুসেন ঘটনাস্থল উপস্থিত থেকে সার্বিক খোঁজ খবর নেন । 

আগুন লাগার পরপরই দমকল বাহিনীর ১৪টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।  আশপাশে কোনও পানির উৎস না থাকায়  আগুন নিয়ন্ত্রণে দেরি হয় বলে জানায় দমকল বাহিনী । 

প্রথমে কথা বলতে রাজি না হলেও পরে কারখানার মহাব্যবস্থাপক (জিএম) হারুন অর রশিদ সাংবাদিকদের জানান, কোন স্থান  হতে অগ্নিকান্ডের সূচনা হয় এ  সম্পর্কে জানা যায়নি।  তবে আগুনে গুদামের  প্রচুর তুলা ও কাঁচামাল পুড়ে গেছে বলে জানান  তিনি । 

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী উপ-পরিচালক আক্তারুজ্জামান জানান, আগুন গত রাত ৩টার দিকে  নিয়ন্ত্রণে আসে।  আগুন নিভানোর জন্য  প্রয়োজনীয় পানির ব্যবস্থা না থাকায় তা নিয়ন্ত্রণে আনতে তাদের বেগ পেতে হয়েছে ।  এদিকে আগুন লাগার ঘটনায় ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় মহাসড়কের দু’পাশে দীর্ঘ যানজট দেখা যায় ।