৭:৫১ পিএম, ২৩ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৮ রমজান ১৪৪০




শেয়ারবাজার পতনে জড়িতদের ছাড় নয়: অর্থমন্ত্রী

২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:১৫ এএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : বেশ কিছু দিন ধরে দেশের শেয়ারবাজারে যেভাবে সূচকের পতন হচ্ছে।  এর পেছনে কেউ জড়িত থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।  আর এ  প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘শেয়ারবাজারের পতনে জড়িত যে বা যারাই থাকুক খুঁজে বের করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।  তাদের কোনও ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। ’

সোমবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। 

বিএসইসির ভবন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকরা বৈঠকের বিষয়ে প্রশ্ন করলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ওই রকম কোনও এজেন্ডা নিয়ে বৈঠক করিনি।  সামনে জাতীয় বাজেট।  শেয়ারবাজারে দিকে আমাদের খেয়াল রয়েছে।  অর্থনীতির সঙ্গে শেয়ারবাজারের একটা সম্পর্ক রয়েছে।  সুতরাং শেয়ারবাজার ভালো হওয়া দরকার। ’

ছুটির দিনে বৈঠক করার কারণ জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপনারাই তো পত্রিকায় লিখছেন, মার্কেট নাই হয়ে গেছে।  কোথায় দেখলেন মার্কেট ফল (পতন) করছে? সূচক ৫ হাজার ৯০০ হয়ে গিয়েছিল।  এখন ৫ হাজার ৩০০ আছে। ’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘শেয়ারবাজার অর্থনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।  অর্থনীতি ভালো হলে শেয়ারবাজার ভালো হবে।  শেয়ারবাজারে এমন ওঠানামা হতেই পারে।  বাজারে এখন আমি খারাপ কিছু দেখি না।  ৫ হাজার ৯০০ থেকে ৫ হাজার ৩০০ হয়েছে, এতে কী এমন হয়ে গেছে? সব দেশেই শেয়ারবাজারে ওঠানামা আছে। ’

মুস্তফা কামাল বলেন, ‘ভয় দেখালে হবে না।  আমাদের শেয়ারবাজার অন্য জায়গার থেকে ভিন্ন।  বাইরে থেকে যারা শেয়ারবাজারে আসেন তারা বোঝেন এবং পড়ালেখা করে আসেন।  কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমাদের এখানে শেয়ারবাজার বোঝেন এমন বিনিয়োগকারীর সংখ্যা খুবই কম।  সবাই যদি বুঝতো তাহলে বাজার নিয়ে আমাদের এতো শক্তিশালী কমিশন দরকার ছিল না। ’

বাজার বর্তমানে ভালো অবস্থানে আছে উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমি মনে করি, এ মুহূর্তে বাজার পরিস্থিতি খারাপ নয়।  এখন মূল্য আয় অনুপাত (পিই) বেশ কম; ১৫ থেকে ২০ এর মধ্যে আছে।  একসময় মূল্য আয় অনুপাত ৯০ হয়ে গিয়েছিল। ’

প্রসঙ্গত, গত ৩ মাস ধরে ধারাবাহিকভাবে শেয়ারবাজারে সূচক কমে আসছে।  গত ২৪ জানুয়ারি ডিএসইর সাধারণ সূচক ৫৯৫০ পয়েন্ট থাকলেও ২১ এপ্রিল পর্যন্ত তা কমে ৫৩২৪ পয়েন্টে নেমে এসেছে।  তিন মাসে বাজার সূচক হারিয়েছে প্রায় ৬২৬ পয়েন্ট বা ১০.৫২ শতাংশ। 

এছাড়া ৪ লাখ ১৯ হাজার ৯৮৮ কোটি টাকার বাজার মূলধন নেমে এসেছে ৩ লাখ ৯৬ হাজার ৩৮৩ কোটি টাকায়। 


keya