১০:৫২ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

সিআইপি নাসিরের আল-হারমাইন হাসপাতাল পেল আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড

১০ নভেম্বর ২০১৭, ০৪:১২ পিএম | মুন্না


এম এনাম হোসেন, আমিরাত প্রতিনিধি : সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসী সিআইপি মাহতাবুর রহমানের নাসিরের মালিকানাধীন সিলেটের আল-হারামাইন হাসপাতাল প্রাইভেট লিমিটেড Business initiative Direction (BID) Award অর্জন করেছে।  স্পেন ভিত্তিক ব্যবসায়ী সংস্থা সম্প্রতি প্যারিসে অনুষ্ঠিত world quality Commitment Award প্রদান অনুষ্ঠানে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে। 

আল-হারামাইন গ্রুপের চেয়ারম্যান বিয়ানীবাজারের সন্তান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাহতাবুর রহমান এ এ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন ।  ব্যবসায়ীক ক্ষেত্রে নেতৃস্থানীয়, দক্ষ ও মানসম্পন্ন উদ্যোক্তাদের এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।  সোমবার হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

তারা বলেন, আন্তর্জাতিক এ অর্জন শুধু হাসপাতালের নয় তা পুরো সিলেটবাসীর।  হাসপাতালের সেবা প্রসঙ্গে তারা জানান, সিলেটে এখন থেকে আন্তর্জাতিকমানের সেবা শুরু হয়েছে।  তা করছে আল হারামাইন গ্রুপ, এতে ২৪ ঘন্টা নিজস্ব কনসাল্টেন্ট ধারা সেবা প্রদান করা হচ্ছে।  নগরীর সোবহানীঘাটে অবস্থিত হাসপাতালটি আগামী ২১ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। 

২৫০ শয্যার আল হারামাইন হাসপাতালটিতে চলতি বছরের শুরু থেকেই সেবা কার্যক্রম চালু রয়েছে। 

হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেজর জেনারেল (অব.) জন গোমেজের পরিচালনায় সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওলিউর রহমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মোহাম্মদ এহসানুর রহমান, পরিচালক ডা. এম ফয়েজ আহমদ। 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, BID Award এর মতো একটি বিশ্বমানের তালিকাভূক্ত হতে পেরে আল হারামাইন কর্তৃপক্ষ আনন্দিত।  এ হাসপাতালে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তিগুলো নিয়ে আসা হয়েছে।  প্রায় ২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বিদেশ থেকে আনা হয়েছে অত্যাধুনিক এমআরআই ও সিটিস্ক্যান মেশিন।  হাসপাতালে রয়েছে বাংলাদেশের প্রথম ৬টি মডিউলার অপরাশেন থিয়েটার।  দেশের প্রসিদ্ধ চিকিৎক ও নার্স ছাড়াও বিদেশী চিকিৎসক ও নার্সরা এখানে চিকিৎসা সেবা প্রদান করছেন।  সংবাদ সম্মেলনে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন কর্তৃপক্ষ। 

Abu-Dhabi


21-February

keya