১১:১১ এএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭, বুধবার | | ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

সুন্দরগঞ্জে‘এ জোড়া জন্ম শিশু অস্ত্র পাচারে শেষে হাসতে হাসতে বাড়ি ফিরলেন

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৭:২৩ পিএম | সাদি


রেজাউল ইসলাম, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা): সোমবার বিকালে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাজেদুর রহমান  সরকার, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম গোলাম কিবরিয়া, ওসি আতিয়ার রহমান ও সমাজ সেবা কর্মকর্তা গোলাম আযম, পল্লী বিদ্যুতের এজিএম রকিবুল ইসলাম, রামজীবন ইউপি  চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মিজানুর রহমান নানা শহিদুলের বাড়িতে গিয়ে ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়ে জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল  ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম গোলাম কিবরিয়া শিশু ২টিকে কোলে তুলে নেন।  পরে তারা শিশু ২টিকে বিভিন্ন প্রকারের উপকরণ উপহার দেন। 

উল্লেখ্য, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীবন ইউনিয়নের কাশদহ গ্রামে নানার বাড়িতে তোফা ও তহুরা জোড়া লাগা অবস্থায় জন্ম গ্রহণ করে।   উরুতে জোড়া লগানো শিশুর জন্ম হওয়ায় এলাকায় চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়।  চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় পাইপোপেগাস এখবরটি স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রচার হলে সরকারের নজরে আসে।  পরে সরকার আদিষ্ট হয়ে জোড়া লাগা অবস্থায় শিশু ২টিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু সার্জারী বিভাগের ভর্তি করেন।  পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের সহযোগি অধ্যাপক শাহনুল ইসলামের অধীনে ভর্তি হন। 

শিশু সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল হামিদ নেতৃত্বে ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের বান এন্ড প্ল্যাস্টিক সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক আবুল কালামসহ ২০ থেকে ২২ জন ডাক্তার সমন্বয়ে অস্ত্র পাচার ২০১৬ সালের ২০ অক্টবর প্রথম অস্ত্র পাচার ও আলাদা করার অস্ত্র পাচার চলতি সালের ১লা আগস্টে করা হয়।  সফল অস্ত্র পাচারের পর তোফা ও তহুরা চিকিৎসকদের তত্ত্ববধানে থাকার পর  গত রোববার দিবাগত রাত ২.০০ টা ৩০ মিনিটে হাঁসতে হাঁসতে কাশদহ গ্রামে নানা শহিদুল বাড়িতে ফিরে আসেন।