১১:৫০ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০




সুনামগঞ্জে স্কুল ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করায় ৭ বখাটেকে গণপিটুনি

০৯ এপ্রিল ২০১৮, ১০:৫৯ এএম | জাহিদ


হাবিব সরোয়ার আজাদ, সুনামগঘঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জে স্কুল ছাত্রীদের যৌন হয়রানী ও শ্লীলতাহানীর ঘটনায় ৭ বখাটে কে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে থানা পুলিশের সোপর্দ করলেন স্থানীয় জনতা।  রোববার রাতে সদর উপজেলার কাঠইর এলাকা থেকে ৭বখাটেকে আটক করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। 

জেলা শহরের বালুর মাঠে বাণিজ্য মেলা থেকে বাড়ি ফেরার পথে সদরকে অটোরিক্সা আটকিয়ে স্কুল ছাত্রীদের যৌন হয়রানী ও শ্লীলতাহানি ঘটায় বখাটেরা। 

আটককৃতরা হল,সদর উপজেলার সরদারপুর গ্রামের আনোয়ার হোসনের ছেলে দেলোয়ার হোসেন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ধনপুর গ্রামের আশরাফ উদ্দিনের ছেলে রায়হান উদ্দিন একই গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে ফয়েজ উদ্দিন, নুরুল হকের ছেলে শাহিনুর, সোনা মিয়ার ছেলে সুমন আহমদ, জামাল সরদারের ছেলে গোলাম কিবরিয়া, শফিক মিয়ার ছেলে আজহার উদ্দিন। 

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার বিকেলে সদর উপজেলার কাঠইর ইউনিয়নের উলুতুলু গ্রামের জনৈক ব্যাক্তি  তার স্ত্রী, মাধ্যমিক স্কুলে পড়ুয়া বোনদের নিয়ে  সুনামগঞ্জ শহরের বাণিজ্য মেলা থেকে কেনাকাটা শেষে অটোরিক্সা যোগে বাড়ি ফেরার পথে সংঘবদ্ধ ৭ বখাটে আরেকটি অটোরিক্সা নিয়ে তাদের পেছনে পেছনে ধাওয়া করে।  কিছু দূর যাওয়ার পর বখাটেরা তাদের অটোরিক্সা থেকে অপর অটোরিক্সায় থাকা নারী ও স্কুল ছাত্রীদের আপক্তির ভাষায় উক্তপ্ত করে। 

কিছু দূর যাবার পর বখাটেরা ফের অটোরিক্সা থামিয়ে এক নারীর শরীরে হাত দেয় ও এক স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীর ওড়না ধরে শরীরের শ্লীলতাহানি ঘটনায়।  এসময় অটোটে থাকা অভিভাবক প্রতিবাদ করলে তাকেও মারধর করতে থাকে বখাটেরা।  এসময় আশেপাশের স্থানীয় লোকজন বিষয়টি লক্ষ্য করে তাৎক্ষণিক ৭ বখাটেকে  আটক করে গণপিটুনি দিয়ে থানায় খবর দিলে  পুলিশ ঘটনাস্থলে বখাটেদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। 

সদর থানার ওসি মো. সহীদুল্লাহ জানান, নারী এবং স্কুল ছাত্রীদের যৌন হয়রানী ও শ্লীলতাহানীর খবর পেয়ে পুলিশ ৭ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।  তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেয়ার ভিসয়টি প্রক্রিয়াদীন রয়েছে বলে জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা। 



keya