১:১০ পিএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার | | ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১




স্বাধীনতা ভালো তবে তা বালকের জন্য নয় : প্রধানমন্ত্রী

০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:২৬ পিএম | নকিব


এসএনএন২৪.কম: বিশ্ববিদ্যালয়ে শৃঙ্খলা বজায় রাখতে না পারলে অর্থায়ন বন্ধের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

শনিবার দুপুরে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা ভালো তবে তা বালকের জন্য নয়।  এটাও মাথায় রাখতে হবে।  কাজেই আমি মনে করি এসব বালকসুলব কথা না বলাই ভালো। 

৭ বছর পর শ্রমিক লীগের সম্মেলন।  বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করেই সকাল থেকে সম্মেলনস্থল সোহরাওয়র্দী উদ্যানে জড়ো হতে থাকে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম এ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। 

বেলা পৌনে ১১টায় সভাস্থলে আসেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  দলীয় রীতিতে ১২তম সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি।  প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ হাসিনা বলেন, দুর্যোগ মোকাবিলার যাবতীয় প্রস্তুতি আছে সরকারের। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যখন ক্ষমতায় এসেছে তখনই এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হতে শুরু করেছে।  যার সুফল আজও এদেশের মানুষ পাচ্ছে।  আমি বাংলাদেশের জনগণকে কৃতজ্ঞতা জানাই তারা ২০০৮ সালের নির্বাচন থেকে একটানা আমাদের ক্ষমতায় রেখেছে। 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আন্দোলন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি মহল শিক্ষার্থীদের উস্কে দিচ্ছে। 

তিনি বলেন, স্বাধীনতা ভালো তবে তা বালকের জন্য নয়।  এটাও মাথায় রাখতে হবে।  কাজেই আমি মনে করি এসব বালকসুলব কথা না বলাই ভালো।  ছেলে মেয়েরা লেখা পড়া করবে, তাদের শিক্ষার সময় যেনো নষ্ট না হয়।  কাজেই উস্কানি দিয়ে ছাত্রদের বিপথে নেয়া আর মুখরোচক কথা বলা এটা কেউ মেনে নিতে পারে না।  আর তাই যদি করতে হয় নিজেদের খরচ নিজেদের চালাতে হবে, সরকার সব খরচ বন্ধ করে দেবে।  কারণ স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান পাবলিক দেবে সরকার কেনো খরচ করবে। 

সম্মেলনে যোগ দেয়া কাউন্সিলররা জানান, এবারের সম্মেলনের মাধ্যমে শ্রমিক লীগ আরও শক্তিশালী হবে। 

সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে সারাদেশের ৭৮ জেলা শাখা থেকে আসা প্রায় ৮ হাজার কাউন্সিলরের ভোটে শ্রমিক লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন।