৬:৪৮ এএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার | | ৯ সফর ১৪৪০


আল-মরচুচ হজ্ব কাফেলার উদ্যোগে পবিত্র হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মসূচি অনুষ্ঠানে বক্তারা

সামর্থ্যবান প্রত্যেক মুসলিমের ওপর হজ্ব পালন করা ফরয

২৬ জুলাই ২০১৮, ০৯:১৭ পিএম | মাসুম


এসএনএন২৪.কম : আল-মরচুচ হজ্ব কাফেলার উদ্যোগে পবিত্র হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মসূচি’১৮ অনুষ্ঠান হাফেজ মুজিবুর রহমান ও হাফেজ মুমিনুল হকের কুরআন তেলোয়াতের মাধ্যমে সূচিত হজ্ব প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠান খলিফায়ে গারাঙ্গিয়া আলহাজ্ব শাহ মাওলানা আবদুল হালিম রশিদীর সভাপতিত্বে ২৬ জুলাই সকাল ১০ টায় চট্টগ্রাম নগরীর একটি রেস্টেুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। 

কাফেলার উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মু: এফতেখার উদ্দীন চৌধুরীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মসূচি’১৮ উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন হজ্ব গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ মোরশেদুল আলম। 

হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হাবের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাহ আলম, মূল আলোচনা পেশ করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন, পতেঙ্গা সিনিয়র মাদ্রাসার ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা আবু ছালেহ মুহাম্মদ ছলিমুল্লাহ, বড়মিয়া জামে মসজিদের খতীব মাওলানা আকতার হোসেন, রসুলাবাদ ফাজিল (ডিগ্রী) মাদরাসার আরবী প্রভাষক মাওলানা মহিউদ্দিন, আলহাজ্ব মাওলানা সরওয়ার আলম। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাব চট্টগ্রাম অঞ্চলের সচিব আলহাজ্ব মাহমুদুল হক পেয়ারু, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মুহাম্মদ সরওয়ার কামাল, বেলাল মুহাম্মদ, মাহমুদুল হক, ডা. আবুল কালাম আযাদ প্রমুখ। 

বক্তারা বলেন, হজ ইসলামের অন্যতম  গুরুত্বপূর্ণ রুকন।  সামর্থ্যবান প্রত্যেক মুসলিমের ওপর হজ্ব পালন করা ফরয।  হজ্ব একটি শারীরিক, আর্থিক ও আতিক ইবাদত।  এ ইবাদতের মাঝে রূহ ও গভীর তাৎপর্যের বিষয় যেমন রয়েছে, তেমনি এতে দীর্ঘ সফর, হিজাযের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন আমল, আমলের নির্ধারিত সময়, ভীড় ও নিত্য নতুন ব্যবস্থাপনার বিষয়ও রয়েছে।  আল্লাহ পাকের ইবাদত অনেক।  কোনো ইবাদতের মাধ্যমে আল্লাহ পাকের গোলামী প্রকাশ করা মাকছুদ, কোনো ইবাদতের মাধ্যমে আল্লাহ পাকের প্রতি বান্দার ইশক ও মুহাববত প্রকাশ করা মাকছুদ।  নামাযের দ্বারা পুরোপুরি আল্লাহ পাকের দাসত্ব ও গোলামী প্রকাশ করা মাকছুদ। আর হজ দ্বারা মকছুদ হল বান্দার পক্ষ থেকে আল্লাহ পাকের প্রতি ইশক ও মুহাববত প্রকাশ করা। 

বান্দা যখন মুমিন হয়, কালিমায়ে তাইয়্যবো পাঠ করে তখন কালিমার প্রথম অংশে দু’টি স্বীকারোক্তি তার পক্ষ থেকে করা হয়ে যায়।  একটি হচ্ছে,মাওলা! আমি তোমার বান্দা, তোমার দাস।  অপরটি হচ্ছে, মাওলা! তুমি আমার মাহবুব।  আমি তোমার আশেক। 

কালিমার এ দু’টি দাবির মধ্য থেকে একটির প্রমাণ পেশ করে নামায।  নামায আবদিয়্যাত বা দাসত্বের প্রমাণ পেশ করে।  আর অপরটি
অর্থাৎ ইশক ও মুহাববতের প্রমাণ পেশ করে হজ।  আল-মারচুচ হজ্ব কাফেলা আল্লাহর মেহমানদেরকে দীর্ঘ ষোল বছর ধরে এ সেবা দিয়ে আসছে।