১২:১৭ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রোববার | | ১৫ মুহররম ১৪৪১




সারাদেশে নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রতিবাদে বাগেরহাটে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত

০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০৪ পিএম | নকিব


এম.পলাশ শরীফ,বাগেরহাট প্রতিনিধি : ‘যৌন আক্রমণ আর না!’এই প্রতিপদ্যকে সামনে রেখে বাগেরহাটে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।  শিরোনামে এ কর্মসূচি পালিত হয়। 

সারা দেশে ক্রমাগত নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রতিবাদে একশনএইড-বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সামনে ঘন্টা ব্যাপী এই মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। 

উদয়ন-বাংলাদেশ এর ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত মানববন্ধন  কর্মসূচীতে জেলা সদরে কর্মরত ৩১টি উন্নয়ন ও মানবাধিকার সংগঠনের কর্মকর্তা কর্মচারী সহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহন করেন।  

উদয়ন - বাংলাদেশ এর পরিচালক ও জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরাম, বাগেরহাট জেলা কমিটির সভাপতি সাংবাদিক ইসরাত জাহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে অন্যান্যেও মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাগেহরহাট সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া খাতুন, জাতীয় মহিলা সংস্থা, বাগেরহাট জেলার সভাপতি এ্যাডভোকেট শরীফা খানম, শিক্ষাবিদ মুখার্জী রবীন্দ্রনাথ, সুপ্তি মহিলা সমিতির পরিচালক ঝিমি মন্ডল, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের জ্যোসনা দেবনাথ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মীর ফজলে সাঈদ ডাবলু, সংকল্প প্রতিবন্ধি উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক শেখ হারুনার রশিদ, ব্র্যাক’র জেলা প্রতিনিধি মারুফ পারভেজ, বঙ্গবন্ধু মহিলা সমিতির সভানেত্রী মিসেস মিতা, আশার আলো বাংলাদেশ’র নির্বাহী পরিচারক কামাল হোসেন প্রমুখ। 

বক্তারা বলেন, চলতি ঊয়রের জানুয়ারি-জুন পর্যন্ত ৬৩০ জন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছে,যা রীতিমতো উদ্বেগজনক। 

এসব ঘটনায় একজন কতৃক ধর্ষণের শিকার ৪৬৪ জন এবং গণ ধষর্ণের শিকার ১৫৩ জন এবং ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৩৭ জনকে।  ধর্ষণের শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছেন ৭ জন।  ধর্ষণের চেষ্টা হয়েছে ১০৫ জন নারীর উপর; এর মধ্যে হত্যা করা হয়েছে ১ জনকে, আত্মহত্যা করেছেন ১ জন।  যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন ১২৭ জন, এর মধ্যে আত্মহত্যা করেছেন ৮ জন।  ধর্ষণের প্রতিবাদ করায় খুন হয়েছে ৩ জন নারী ও ২ জন পুরুষ। 

সারাদেশের ধর্ষনের খতিয়ান তুলে ধরে বক্তারা বলেন,দেশে আইনের শাসন এবং ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সহিংসতার শিকার নারী ও শিশুকে সকল সেবা দিতে সাহায্য এগিয়ে এসে ঘঁনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যাবস্থা গ্রহন করার আহবান জানান। 


keya