৪:২০ এএম, ২৪ নভেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

সালমানকে ভুলব কেমন করে: মৌসুমী

০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৮:০১ এএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কম : সালমান শাহ ও মৌসুমী বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জুটি ছিলেন।  ১৯৯৩ সালে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমার মধ্য দিয়ে দেশের সিনেমায় আবির্ভাব হয় সালমান শাহ ও মৌসুমীর।  প্রথম সিনেমা দিয়েই এই জুটি বেশ আলোচিত হন।  সিনেমার আগে থেকেও তাঁদের দুজনের সম্পর্ক ছিল বলে জানান মৌসুমী।  মাত্র চার বছরের অভিনয়জীবনে জনপ্রিয় এই নায়ক ২৭টি ব্যবসাসফল ও দর্শকনন্দিত সিনেমা উপহার দেন।  ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সবাইকে কাঁদিয়ে পরপারে পাড়ি জমান সালমান।  মৃত্যুর এত বছর পর এখনো প্রিয় নায়ক আর পছন্দের সহশিল্পী কাঁদান তাঁর ভক্ত ও বন্ধু আর শুভাকাঙ্ক্ষীদের। 

গতকাল ছিল জনপ্রিয় এই নায়কের ২১তম মৃত্যুবার্ষিকী।  সহশিল্পী আর কাছের বন্ধুকে নিয়ে স্মৃতিচারণা করতে গিয়ে মৌসুমী বলেন, যদিও মাত্র চারটি ছবিতে আমি সালমান শাহর সঙ্গে কাজ করেছি, কিন্তু সে ছিল আমার প্রকৃত বন্ধু।  আজ এতটা বছর পরও তাকে ভুলে যাওয়া সম্ভব হয়নি।  হয়তো কখনো তাকে ভুলে যেতে পারব না।  সারা দিন কাজ শেষে সময় করে উঠতে পারিনি, কিন্তু তাই বলে তোকে ভুলে যাইনি, সারা দিন তোকে অনেক মিস করেছি। 

 সালমান শাহর মৃত্যুর দিনটি স্মরণ করে মৌসুমী বলেন, আমাদের চলচ্চিত্রের সঙ্গে জড়িত প্রতিটি মানুষ চোখের জলে ভাসছে আজ।  কারণ আজ সেই দিন, যে দিন আমরা সবাই হারিয়েছি আমাদের অতি প্রিয় ও গুণী একজন তারকা সালমান শাহকে।  সে শুধু একজন অভিনেতাই ছিল না, সে ছিল আমার শৈশব, কৈশোরের বন্ধু।  ছোটবেলা থেকেই একসঙ্গে পথ চলা।  মাঝপথে বিরতি, এরপর সোহানুর রহমান সোহান স্যারের ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মাধ্যমে আমাদের বন্ধুত্ব আবার নতুন করে শুরু হয়।  কিন্তু তা খুব বেশি দিন স্থায়ী হয়নি।  সিনেমায় কাজ শুরুর চার বছরের মাথায় সে সবাইকে ছেড়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমায়। 

সালমান শাহকে এখনো আগের মতোই মনে করেন মৌসুমী।  বললেন, ‘তুই আছিস আগের মতো বন্ধু হয়ে মনের গহিনে।  যেখানেই থাকিস, ভালো থাকবি, মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে এই কামনাই করি। ’

‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছাড়া মৌসুমী ও সালমান শাহ জুটির অন্য সিনেমা হচ্ছে ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘স্নেহ’ ও ‘দেনমোহর’।