৭:২৮ এএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৮

South Asian College

সুস্থ থাকতে চাইলে মিষ্টি খাওয়া কমান

২৩ আগস্ট ২০১৭, ১১:১১ এএম | সাদি


এসএনএন২৪.কম : খাবারের শেষে একটু পায়েস, পুডিং, এক টুকরো সন্দেশ খেতে কার না ভালো লাগে? কিন্তু নিয়মিত এইরকম চললে ব্লাড সুগার বা ওবেসিটিক থেকেও খারাপ রোগে আক্রান্ত হতে পারেন।  বিজ্ঞানীদের সমীক্ষা তাই বলছে। 

শুধু ব্লাড সুগারই নয়, অতিরিক্ত চিনি খেলেই বা মিষ্টি খাবার খেলে অবসাদের শিকার হতে পারেন।  এমনই জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।  বিশেষ করে পুরুষদের মধ্যে এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি বলে জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। 

বিজ্ঞানীদের মতে, অতিরিক্ত মাত্রায় মিষ্টি খেলে পুরুষদের মধ্যে মেন্টাল ডিজঅর্ডার দেখা যায়।  ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের বিজ্ঞানী অ্যানিকা নুপ্পেল জানিয়েছেন, অতিরিক্ত মাত্রায় মিষ্টি খেলে শারীরিক ক্ষতি তো হয়ই।  কিন্তু মিষ্টির সঙ্গে মানুষের মেজাজের এক বিশেষ যোগাযোগ রয়েছে। 

এমনিতেই ডায়েট চার্ট মানুষের মানসিক স্বাস্থ্যের উপরে প্রভাব ফেলে।  কিন্তু ডায়েটে যদি অধিকাংশ ভাগই মিষ্টি থাকে, তা হলে অবসাদ বা অ্যানজাইটির মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রবল। 

বিজ্ঞানীরা সমীক্ষার মাধ্যমে দেখেছেন, পাঁচ বছরে যারা বেশি মাত্রায় মিষ্টি খাবার ও পানীয় খেয়েছেন, তাদের অধিকাংশই অবসাদে আক্রান্ত হয়েছেন।  তুলনায় যারা কম মিষ্টি খেয়েছেন তারা কম অবসাদগ্রস্ত হয়েছেন। 

সাধারণত মানুষের মেজাজ খারাপ থাকলে তাদের মধ্যে মিষ্টি খাওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে।  তারা ভাবেন, মিষ্টি খেলেই মেজাজ ভালো হয়ে যায়।  কিন্তু আসলে উল্টোটা হয়।  সাময়িকভাবে মেজাজ ঠিক হলেও, অবসাদে আক্রান্ত হতে পারে মানুষ। 

চিকিৎসকদের মতে, অবসাদ বা ডিপ্রেশনে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিনদিন বেড়ে চলেছে।  অধিকাংশ রোগেরই মূল কারণ অবসাদ বলে জানিয়েছেন তারা।  কম বয়স থেকেই অবসাদের শিকার হলে, ব্লাড সুগার, স্নায়ু রোগ, হার্টের সমস্যা ইত্যাদি হতে পারে।  এই রোগগুলোই বেশি দূর পর্যন্ত গড়ালে মৃত্যুও হতে পারে।