৮:০২ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | | ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

হাজী মোহাম্মদ ওমরা মিয়া চৌধুরীর ৫৫তম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণ সভায় ভূমি প্রতিমন্ত্রী

১২ নভেম্বর ২০১৭, ০৪:১৩ পিএম | মুন্না


এসএনএন২৪.কম : মরহুম হাজী মোহাম্মদ ওমরা মিয়া চৌধুরী ছিলেন আজীবন সমাজব্রতী ও সমাজ সংস্কারক।  গ্রামের পিছিয়ে পড়া সমাজের পরিবর্তনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে একজন সমাজদরদী ব্যক্তিত্বে পরিণত হন সমকালীন সময়ে তিনি। 

শিক্ষা, সমাজসেবা, মানবতার কল্যাণ ও দেশ গঠনে যেমন, ওমরা মিয়া চৌধুরী ছিলেন সাহসী সৈনিক ঠিক তেমনি ধর্মীয় মূল্যবোধ ও সমাজ সংস্কারেও ছিলেন কিংবদন্তীতুল্য অগ্রজ। 

কালের কীর্তিতে মহিরুহ ব্যত্বিত্বে পরিণত হয়ে ওমরা মিয়া চৌধুরী মানবতার আদর্শে উপনীত হন আপন কর্ম উদ্দীপনায়।  কর্ণফুলী উপজেলাধীন ঐতিহ্যবাহী কালারপোল হাজী মোঃ ওমরা মিয়া চৌধুরী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান খান সাহেব হাজী মোঃ ওমরা মিয়া চৌধুরীর ৫৫তম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে ভ‚মি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এম.পি উপরোক্ত মন্তব্য করেন। 

কর্ণফুলী উপজেলাধীন ঐতিহ্যবাহী কালারপোল হাজী মোঃ ওমরা মিয়া চৌধুরী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান খান সাহেব হাজী মোঃ ওমরা মিয়া চৌধুরীর ৫৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা ১১ নভেম্বর বিকাল ৪টায় নগরীর চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও সাদার্ণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মো: মহিউদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। 

স্মরন সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভ‚মি প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এম.পি।  প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে ভূমি প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিক্ষায় কম অবস্থান হলেও শিক্ষার জন্য কাজ করে অমরত্ব ও কীর্তির সৃষ্টি করা যায় তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত মরহুম ওমরা মিয়া চৌধুরী।  প্রতিমন্ত্রী জাবেদ আরো বলেন, মরহুম ওমরা মিয়া চৌধুরী কর্ম ও কীর্তিতে আজ মরেও অমর হয়ে আছেন সমাজে। 

সমাজ পরিবর্তনে যারা কাজ করে তারা কালের কীর্তিতে অজেয় ও প্রজন্মের কাছে আজন্ম স্মরণীয়।  ভ‚মি প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠির কল্যাণে ও মানবহিতৈষী কর্মকান্ডে মরহুম ওমরা মিয়া চৌধুরী আজীবন যে সকল কর্মকান্ড করেছেন তা বর্তমান সময়ের অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়। 

তিনি সকলকে মরহুম ওমরা মিয়া চৌধুরীর অনুসৃত পথ অনুসরন করে সমাজ পরিবর্তনে এগিয়ে আসার আহবান জানান।  স্মরণ সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, কর্ণফুলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফারুক চৌধুরী, মরহুমের সুযোগ্য সন্তান আলহাজ্ব মোঃ জামাল উদ্দিন চৌধুরী, বিশিষ্ট নগর পরিকল্পনাবিদ ইঞ্জিনিয়ার আলী আশরাফ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সিদ্দিক আহমেদ বি.কম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দিদারুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বানাজা বেগম, শিকলবাহা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। 

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ আবদুর রহীম চৌধুরীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ব্যাংকার জহুর আহমেদ রাজু, দোস্ত মোহাম্মদ, প্যানেল চেয়ারম্যান শফিউল আলম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সোলায়মান তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক সেলিম হক, প্রকৌশলী টি.কে. সিকদার, সংগঠক স.ম. জিয়াউর রহমান, মাওলানা আবদুল মান্নান আশরাফী, মাওলানা মুহাম্মদ রবিউল আলম সিদ্দিকী, নোমান উল্লাহ বাহার, মোঃ খোরশেদ আলম, মাওলানা মোঃ মাহবুবুর রহমান, বোরহান উদ্দিন গিফারী, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ কামাল হোসেন, সেলিম উদ্দিন সানি, এম. এ. রহিম, ইয়াসিন আরাফাত, আবদুল মান্নান ফোরকান, মোঃ ইউসুফ, মোঃ নজরুল, মোঃ আরিফ, ইমতিয়াজ উদ্দিন, পিংকু শীল, ডা. হাসান মুরাদ সাগর প্রমুখ।