১০:৪৪ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার | | ৬ রবিউস সানি ১৪৪০




পিরোজপুর-৩ আসনে

হাতপাখা মার্কা প্রার্থী মাওলানা ছগীর হুসাইনের শুভেচ্ছা বিনিময়

০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩:২৭ পিএম | জাহিদ


মুহা: দেলোয়ার হোসাইন, পিরোজপুর :  আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় সংসদের ১২৯ পিরোজপুর-৩ মঠবাড়িয়া আসনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর হাত পাখা মার্কার প্রার্থী মাওলানা মুহাম্মদ ছগীর হুসাইন এলাকার ভোটারদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন।  

তিনি তার মনোনয়ন বৈধ হওয়ার পর থেকে দলীয় নেতা সমর্থকদের নিয়ে মঠবাড়িয়া পৌরসভাসহ উপজেলার ১১ ইউনিয়নের ভোটারসহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে জয়ের আশায় সকলের দোয়া প্রার্থনা করছেন।  

জানাগেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর হাতপাখা মার্কায় নতুন প্রার্থী হিসেবে মাওলানা মুহাম্মদ ছগীর হুসাইন দলীয়ভাবে মনোনয়ন পেয়েছেন।  এর আগে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন মঠবাড়িয়া শাখার সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যাবসায়ি শফি মাহমুদ খোকন তালুকদার মনোনয়ন পেয়েছিলেন। 

তিনি গত নির্বাচনে সাড়ে ১৩ হাজার ভোট পেয়েছিলেন।  এবার দল নতুন প্রার্থী হিসেবে চরমোনাই আহছানাবাদ রশীদিয়া কামিল মাদরাসা ও বাকেরগঞ্জ আল-আমীন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদেও খতিব মাওলানা মুহাম্মদ ছগীর হুসাইনকে মনোনয়ন দেয়।  নতুন প্রার্থী এলকায় ইতিমধ্যে পরিচিতি পেতে শুরু করেছেন। 

ইসলামী আন্দোলনের মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহম্মেদ লাবু মৃধা বলেন মঠবাড়িয়ার তৃণমুলে আমাদের কার্যকর কমিটি রয়েছে।  তাছাড়া পীরের বিপুল সংখ্যক মুরীদ রয়েছে।  গত দশম সংসদ  নির্বাচনের পর দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার হয়েছে।  ফলে ইসলামী আন্দোলন এবার নির্বাচনী মাঠে এ আসনে একটা ফ্যাক্টর হবে। 

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মঠবাড়িয়া আসনের নির্বাচন সমন্বয়ক মাওলানা বেলায়তে হোসেন বলেন, আসন্ন নির্বাচনে দল থেকে শিক্ষক মাওলানা মুহাম্মদ ছগীর হুসাইনকে দলীয় মনোয়ন চূড়ান্ত করা হয়েছে।  এ আসনে চরমোনাই পীরের অনুসারীদেও মাঝে নতুন প্রার্থী নিয়ে ব্যাপক উৎসাহ সৃষ্টি হয়েছে।  এখানে সংগঠন সুসংহত। 

আশা করা যাচ্ছে এবার ভোটারদেরও ব্যাপক সাড়া পাবে ইসলামী আন্দোলন।  মঠবাড়িয়া আসনের প্রার্থী মাওলানা মুহাম্মদ ছগীর হুসাইন বলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দেশে ইসলামী মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি ইসলামী হুকুমত কায়েমে সোচ্চার।  

তিনি আরও বলেন, আমি নির্বাচিত হলে প্রতিটি মসজিদে কোরানী মক্তব প্রতিষ্ঠা ও উনিয়ন পর্যায় মহিলা মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় কাজ করবো। 



keya