৯:৪৯ এএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর র্নিমম হামলার প্রতিবাদে মৌলভীবাজারে মানববন্ধন

১২ নভেম্বর ২০১৭, ০৪:৩৯ পিএম | রাহুল


সৈয়দ ফয়েজ আলী, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: ফেইসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে রংপুরে হিন্দুদের বাড়িতে হামলা-অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে  আজ রবিবার মৌলভীবাজার প্রেস ক্লাবের সামনে সিপিবি-বাসদ এর আয়োজনে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্টিত হয়। 

বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পাটির মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি এডভোকেট  মকবুল হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিলিমেষ ষোঘ বলুর সঞ্চালনায় উক্ত  সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পাটির কেন্দ্রীয় কমিটির  প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড আবু জাপর আহমেদ, মৌলভীবাজার জেলা বাসদের সভাপতি এডভোকেট মকবুর আহমেদস, মৌলভীবাজার জেলার উদীচী শিল্পীগোষ্ঠির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাফিজ চৌধুরী ইমু, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সংগঠক মাছুমা খানম,তরুর সনাতনী সংঘের সাধারণ সম্পাদকজগদীশ দাস, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের মৌলভীবাজার সরকারী কলেজের সভাপতি সুবিনয় রায় শুভ প্রমূখ। 

এসময় বক্তারা অভিযোগ করেন, সংখ্যালঘুদের উপর এসব হামলা ঘটছে ক্ষমতাসীনদের প্রত্যক্ষ মদদে।   রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্বার্থ রয়েছে এর পিছনে।  সংখ্যালঘু হিন্দুদের উপর আক্রমণ করে ভয় দেখিয়ে তাদের তাদের ভিটে-মাটি থেকে উচ্ছেদ করে ভূমি দখল করার লক্ষ্যে ক্ষমতাসীনদের প্রশ্রয়ে থাকে সন্ত্রাসীরা এসব হামলা চালাচ্ছে। 

এছাড়া সংখ্যালঘু মানুষের নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি করে তাদের নিরাপত্তা দেয়ার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে নিজেদের ‘ভোট ব্যাংক’ এ পরিণত করতে এ পরিকল্পিত হামলা চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বক্তাদের অনেকে।  বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত ঘটনা দেখে মনে হয় স্বার্থন্বেষী গোষ্ঠী সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের সম্পত্তি দখল করার জন্য এ হামলা করতে পারে।  এ ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত করে দ্রুত বিচার এবং দায়ীদের কঠোর শাস্তি দেওয়ার দাবি জানিয়ে কমিউনিষ্ট নেতারা বলেন, “সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার কোনো সুযোগ কাউকে দেওয়া যাবে না। 

দেশে এ ধরনের পরিস্থিতি যাতে আর না হয় সেজন্য জনগণকে সজাগ থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। ”এবং র্বতমান সরকার স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি বলে,কিন্তু তাদের শাষন আমলে সাম্প্রদায়ীকতার যে রুপ বাংলাদেশে সৃষ্টি হচ্ছে তার দায়বার কিন্তু র্বতমান সরকরেকেই নিতে হবে।