১২:৫৫ এএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, শুক্রবার | | ৫ রবিউস সানি ১৪৪০




হবিগঞ্জে দু’ পক্ষের লোকজনের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষ

০২ আগস্ট ২০১৮, ০৭:৫৮ এএম | জাহিদ


আখলাছ আহমেদ প্রিয়, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ জেলার  বানিয়াচং উপজেলার উত্তর সাঙ্গর গ্রামে ভিশন মাল্টিপারপাস (সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি)-এর মালিকা নিয়ে দু’ পক্ষের লোকজনের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। 

এতে উভয় পক্ষে প্রায় অর্ধশত লোকজন আহত হয়েছে।  টেটাবিদ্ধ গুরুতর আহত অবস্থায় ১৪ জনকে ঢাকা ও সিলেট হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।  আহত অন্যান্যদের হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত এ সংঘর্ষ চলে।  এর জের ধরে রাত ১০ টায় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালেও দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।  এ ঘটনায় পুলিশ ২২ জনকে আটক করেছে। 

আহত সূত্র জানায়, হবিগঞ্জ শহরের ভিশন ইলেক্ট্রনিক্সের স্বত্ত্বাধিকারী বানিয়াচং উপজেলার উলে­খিত গ্রামের আব্দুল হাকিম ফুল মিয়া ও  (অবঃ) সেনা সদস্য আব্দাল রাজার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে ভিশন মাল্টিপারপাস (সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি)-এর মালিকা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।  এ বিষয়ে কয়েকবার সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।  তবে এর কোন সুরাহ হয়নি।  এর জের ধরে বুধবার সন্ধ্যায় উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। 

এতে দফায় দাফায় সংঘর্ষে লুটপাট ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।  খবর পেয়ে বানিয়াচং থানা ও সুজাতপুর ফাড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ৭ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।  এ সময় সুজাতপুর ফাড়ির এস আই লোকমান-এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ সংঘর্ষের জড়িত ২২ জনকে আটক করেছে।  সংঘর্ষে টেটাবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছে। 

আশংকাজনক অবস্থায় টেটাবিদ্ধ আল আমিন (২০), মোঃ আদম আলী (৭০), আলদো (৪০), রমচান বিবি (৫০), আব্দুল মোতালিব (৫০), শেখ শামছুল হক (৭০), কাজল মিয়া (৭০), বাবুল মিয়া (৩২), আব্দুর রব (৩৫), সাইদুর (২০), আদাস আলী (৭০), সালাম (৬০), মারফুজ (৩০) ও জজ মিয়া (৫০) কে ঢাকা ও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক। 

আহত নাজমুল মিয়া (২০), তাহির মিয়া (২২), সাইদুর রহমান (২৫), আলী ইসলাম (৩৫) ও আজিজুল ইসলাম (৪০), মহন মিয়া (৩০), আব্দাল মিয়া (২০), তাজুল (২৫), ফরহাদ (৪২), মোশাহিদ (৩২), ইমরান (২৬), সানু মিয়া (৩০), মামুন (২৩), কাছুম আলী (৪৫), আলীম (২০) সিজিল (৩২), মোতালিব (৩৫), বেনু মিয়া ( ২০), ইব্রাহীম (৩০) কালাম (৩২), শুভ ২৫), আরজু মিয়া (৩০) কে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  এর জের ধরে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালেও দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। 

বিষয়টি জের ধরে ওই এলাকায় উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।  যে কোন সময় আবার ভয়াবহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংকা করছেন এলাকাবাসী।  সংঘর্ষ এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে সুজাতপুর ফাড়ির ইনচার্জ আল আমিন জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।  ফের সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।