১১:৩৮ পিএম, ২১ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৭ শাওয়াল ১৪৩৯

South Asian College

২৫ বছর বয়সে পিইসি পাশ করে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হলেন শাহেদ

১৭ জানুয়ারী ২০১৮, ১২:০১ এএম | সাদি


জাহেদুল ইসলাম, লোহাগাড়া প্রতিনিধি : হার না মানা মোহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম।  বয়স ২৫।  লোহাগাড়া উপজেলার সদর ইউনিয়নে জীয়ন কাঠি নার্সারিতে কাজ করেন দীর্ঘদিন ধরে।  লোহাগাড়া আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ২০১৭ সালে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় (পিইসি) অংশগ্রহণ করে ৩.২৫ পয়েন্ট পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন।  গত কয়েকদিন আগে একই স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হন।  তার বাড়ি চন্দনাইশ উপজেলার পশ্চিম কেগুয়া এলাকায়।  সে ওই এলাকার ইউনুছ আহমদের পুত্র।  সে ৫ বোন ৩ ভারইয়ের মধ্যে দ্বিতীয়।  বাবা কৃিষ কাজ করেন। 

জীয়ন কাঠি নার্সারির মালিক মো: আলাউদ্দিন শাহেদরে পড়াশুনার আগ্রহ দেখে বিদ্যালয়ে ভর্তি করে দেন।  দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হওয়ার পর বয়স ও মেধা বিবেচনায় পঞ্চম শ্রেণীতে প্রমোশন দেওয়া হয়।  শাহেদ কাজের কারণে নিয়মিত ক্লাস করতে না পারলেও সকালে ৫ম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে অতিরিক্ত ক্লাসে নিয়মিত উপস্থিত থাকতেন।  শুধু দু’ঘন্টা অতিরিক্ত ক্লাসের পাশাপাশি নিজ আগ্রহ ও চেষ্টায় ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় বি (৩.২৫) গ্রেড লাভ করেন শাহেদ। 

আলাউদ্দিনের স্ত্রী নাসরিন জাহান বলেন, শাহেদ গত ৪ বছর আগে চাকুরীতে যোগদান করেন।  তার ছেলের পড়াশুনার আগ্রহ দেখে সেও নিজের আগ্রহ প্রকাশ করেন।  ছেলে সাথে তাকেও নিয়মত পাঠদান করাতেন।  তার ছেলেও শাহেদকে পড়াতেন।  কাজের ফাঁকে সে নিজে নিজে পড়তেন।  না পারলে সাহায্য নিতেন।  পিইসি রেজাল্ট পাওয়ার পর নিজে খুশিতে আত্মহারা।  সে বড় হয়ে মানুষের মত মানুষ হবে সে কামনায় করি।  তাকে আরো ভালো লাগে গান করে কাজ করে।  গানের মাঝে সে যেন বেঁচে থাকে। 

লোহাগাড়া আইডিয়াল স্কুলের প্রধান শিক্ষক হামিদুল হোছাইন বলেন, “শাহেদ নিয়মিত অতিরিক্ত ক্লাসে উপস্থিত থাকতো।  সে কঠোর পরিশ্রমী।  পড়শুনা অব্যাহত রাখলে অনেক দূর এগিয়ে যাবে শাহেদ। ” ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ফ্রী ভর্তি করা হয়েছে।  মসিক বেতনও অর্ধেক। 

শাহেদ বলেন, সে পরাজয়কে জয় করতে চাই।  পরিবারে অভাব অনটনের কারণে বিদ্যালয়ে পড়াশুনার সুযোগ হয়নি।  অভাবের তাড়নায় পেঠের দায়ে অভাব গোছাতে নার্সারীতে চাকুরী নিয়েছি।  মালিক আমার সাথে কাজের ফাঁকে আলাপ করতেন। 

একদিন আমাকে পড়াশুনা করার পরামর্শ দেন।  ওনার পরামর্শে আগ্রহ দেখালে স্কুলে ভর্তি করে দেন।  “আমি কাজের পাশাপাশি পড়াশুনা চালিয়ে যেতে চাই।  ভাল মানুষ হতে চাই।  ভবিষ্যতে একজন সফল ও সৎ ব্যবসায়ী ও গায়ক হতে চাই। ” একজন ভাল মানুষ হতে সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেছেন শাহেদ।