১১:১০ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ১ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

৮২তে যতীন স্যার

২৫ আগস্ট ২০১৭, ০৮:২৪ এএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কমঃ বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, প্রাবন্ধিক ও সাম্যবাদী তাত্ত্বিক যতীন সরকারের ৮২তম জন্মদিন আজ।  শুক্রবার দিবসটি উপলক্ষে অন্যান্য বছরের মতো এবারো ‘জন্মদিন উদযাপন পর্ষদ’ বিকেলে নেত্রকোনা শহরের সাতপাই এলাকায় যতীন সরকারের নিজস্ব বাসভবন ‘বানপ্রস্থ’ প্রাঙ্গণে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। 

আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক হারাধন সাহা আরটিভি অনলাইনকে জানান, অনুষ্ঠানের মধ্যে বিকেল পাঁচটায় ৮২টি প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, সমবেত সঙ্গীত পরিবেশন, বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন, মানপত্র পাঠ ও উত্তরীয় প্রদান, জীবন ও কর্মের ওপর লেখা প্রবন্ধ পাঠ, আলোচনা এবং স্মৃতিচারণের আয়োজন করা হয়েছে। 

কর্মসূচিতে আরো রয়েছে কবিতা আবৃত্তি ও বাউল শিল্পী নুরু বাউলের পরিবেশনায় সংগীতসন্ধ্যা।  যতীন সরকার ১৯৩৬ সালের এই দিনে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার চন্দপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।  বাবা জ্ঞানেন্দ্র সরকার ছিলেন হোমিও চিকিৎসক।  মা বিমলা বালা সরকার ছিলেন গৃহিনী।  দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে বেড়ে ওঠা যতীন সরকারের ছোটকাল থেকেই স্বপ্ন ছিল একজন আদর্শ শিক্ষক হওয়ার। 

ময়মনসিংহের নাসিরাবাদ কলেজের বাংলা বিভাগের প্রাক্তন এই শিক্ষক সুদীর্ঘকাল ধরে মননশীল সাহিত্য চর্চা, বাম রাজনীতি এবং প্রগতিশীল আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন।  তিনি দু’মেয়াদে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।  এছাড়া কর্মী, সংগঠক ও অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করেছেন বহু সংগঠনের।  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার পর তিনি জেল খেটেছেন ১৮মাস।  ছাত্রজীবনে লেখালেখি শুরু হলেও যতীন সরকারের প্রথম বই ‘সাহিত্যের কাছে প্রত্যাশা’ প্রকাশিত হয় ১৯৮৫ সালে ৫০ বছর বয়সে। 

এরপর একে একে প্রকাশিত হয় বাংলাদেশের কবি গান, বাঙালির সমাজতান্ত্রিক ঐতিহ্য, সংস্কৃতির সংগ্রাম, গল্পে  গল্পে ব্যাকরণ, মানবমন মানব ধর্ম ও সমাজ বিপ্লব, পাকিস্তানের জন্ম-মৃত্যু দর্শন, পাকিস্তানের ভূত দর্শন, দ্বিজাতিতত্ত্ব নিয়তিবাদ ও বিজ্ঞান চেতনা, ধর্মতন্ত্রী মৌলবাদের ভূতভবিষ্যৎ, বিনষ্ট রাজনীতি ও সংস্কৃতি, প্রাকৃতজনের জীবনদর্শন, ভাবনার মুক্তবাতায়নসহ প্রায় ৭০টির বেশি বই।  সেই সঙ্গে সম্পাদনা করেছেন বহু গ্রন্থ।  ‘সমাজ অর্থনীতি ও রাষ্ট্র নামে’ তত্ত্বমূলক ত্রৈমাসিক একটি পত্রিকা সম্পাদনা করেন তিনি।   লেখক হিসেবে যতীন সরকার ২০১০ সালে স্বাধীনতা পুরস্কার, ২০০৭ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, ২০০৫ সালে পাকিস্তানের জন্ম-মৃত্যু দর্শন গ্রন্থের জন্য প্রথম আলো বর্ষসেরা গ্রন্থপুরস্কার, ড. এনামুল হক স্বর্ণ পদক, খালেকদাদ চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কার, মনিরুদ্দীন ইউসুফ সাহিত্য পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননা লাভ করেন। 

৪০বছরের বেশি সময় শিক্ষকতা পেশায় থেকে ২০০২ সালে অবসর গ্রহণের পর স্ত্রী কানন বালা সরকারকে নিয়ে শেঁকড়ের টানে চলে আসেন তিনি নিজ জেলা নেত্রকোনায়।  বর্তমানে বসবাস করছেন শহরের সাতপাই এলাকার নিজ বাসাতে।  ‘বানপ্রস্থ’ নামের ওই বাসাটি এখন তার মতাদর্শে বিশ্বাসী সতীর্থ, শিষ্য, ছাত্রদের জ্ঞান চর্চার কেন্দ্র।  তিনি এক পুত্র ও এক কন্যার জনক। 

ছেলে সুমন সরকার পেশায় চিকিৎসক।  বিদেশে স্থায়ীভাবে বসবাস করেন।  মেয়ে সুদিপ্তা সরকার যুগ্ম জেলা জজ হিসেবে কর্মরত