১:১০ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার | | ২১ মুহররম ১৪৪৪




নিউইয়র্কের জনসমাগমস্থলে বন্দুক নিষিদ্ধ

০৩ জুলাই ২০২২, ০৩:৩৫ পিএম |


এসএনএন২৪.কমঃ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইন পাসের পর ধীরে ধীরে এর প্রয়োগ শুরু হচ্ছে।  শুক্রবার (১ জুলাই) নিউইয়র্ক রাজ্যের জনসমাগমস্থলে বন্দুক নিষিদ্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। 

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, টাইমস স্কয়ারসহ অনেক জনসমাগমস্থলে বন্দুক নিষিদ্ধ করে একটি আইন পাস করা হয়েছে এ রাজ্যে।  যারা বন্দুক রাখতে পারবেন, অবশ্যই তাদের কাছে লাইসেন্স থাকতে হবে।  আর যারা লাইসেন্স প্রত্যাশী, তাদেরকে অবশ্যই নিজেদের বন্দুক চালানোর দক্ষতা প্রমাণ করতে হবে। 

এ ছাড়া যারা বন্দুকের লাইসেন্স চায়, তাদের পূর্বাপর কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণের জন্য সরকারি কর্মকর্তাদের নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট জমা দিতে হবে। 

বন্দুক নিয়ন্ত্রণের এ আইন পাস নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিতর্ক রয়েছে।  অনেকেই মনে করেন, আইনের কারণে নিজেদের নিরাপত্তা খর্ব করা হয়েছে।  আবার অনেকে মনে করেন, আইন পাস হলে রাষ্ট্রে বন্দুক হামলা কমে যাবে।  রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট নেতা-সিনেটরদের মধ্যেও আইনটি নিয়ে বিতর্ক হয়েছে। 

নিউইয়র্কের গভর্নর ক্যাথি হোচুল বলেছেন, আইন প্রবিধানের কারণে নিউইয়র্কে বন্দুক হামলা ও এ সংক্রান্ত ঘটনা কমে যাবে।  ডেমোক্র্যাট এ নেতা আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যের মধ্যে শুধু তার রাজ্যেই বন্দুক হামলায় নিহতের ঘটনা পঞ্চম-নিম্ন হারে রয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, বন্দুক আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর আমরা এতটুকু নিশ্চিত যে, এটি নিউইয়র্কবাসীদের ক্ষতি থেকে নিরাপদ রাখবে। 

এর আগে গত সপ্তাহে বন্দুক সহিংসতা নিয়ন্ত্রণে পাস হওয়া বিলে সই করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।  গত ৩০ বছরের মধ্যে বন্দুক নিয়ন্ত্রণে দেশটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আইন এটি।  সই করার আগে বাইডেন বলেছিলেন, তিনি যা চেয়েছেন, তার পুরোটি এই আইনে সংযোজিত হয়নি।  আইনের বিধিনিষেধ কম হয়েছে।  তবুও এই আইন প্রয়োগে মানুষের জীবন বাঁচবে বলে তিনি মনে করেন। 

এর আগে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চ ও নিম্ন কক্ষে ভোটাভুটিতে পাস হয় বিলটি।  পরে স্বাক্ষরের জন্য পাঠানো হয় প্রেসিডেন্ট বাইডেনের কাছে। 

নতুন এই আইনে বলা হয়েছে, ২১ বছরের কম বয়সী কেউ আগ্নেয়াস্ত্র কিনতে চাইলে, তার ব্যক্তিগত ও পারিবারিক নানা বিষয় কঠোরভাবে যাচাই করা হবে।  একই সঙ্গে হুমকি হিসেবে বিবেচিত অস্ত্রধারীদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র তুলে নিতে ‘লাল পতাকা’ আইন প্রয়োগের কথা বলা হয়েছে। 


keya