১:২৭ এএম, ১০ আগস্ট ২০২২, বুধবার | | ১২ মুহররম ১৪৪৪




সুনামগঞ্জের উন্নয়ন আর সফলতার চিত্র

৩০ নভেম্বর -০০০১, ১২:০০ এএম | মোহাম্মদ হেলাল


হাবিব সরোয়ার আজাদ, সুনামগঞ্জে : ব্যর্থতাকেও মুছে আর স্বার্থকতার ঝুলি নিয়ে কাল থেকে যাত্রা শুরু হচ্ছে  ইংরোজী নববর্ষ ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ ।  বিদায় নিচ্ছে ঘটনাবহুল ২০১৬ ।  ২০১৬ সালটি একদিকে যেমন মন খারাপ করে দেওয়ার মতো খবর ছিল, তেমনি ভালো খবরও ছিল অনেক।  কাল বছরের প্রথম দিনটি সারা দেশের ন্যায় গোটা সুনামগঞ্জের ১১টি উপজেলায়ন বই উৎসবের মধ্য দিয়ে শুরু হবে।   ঘটনাবহুল ২০১৬ সালটি  সুনামগঞ্জ জেলা জুড়ে একদিকে যেমন ছিল নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডে আলোচনা সমালোচনার বছর তেমনি সকল ব্যর্থতাকে ছাপিয়ে বছর জুড়েই ছিল নানা উন্নয়ন ও সফলতার চিত্র । 
২০১৬ সালে সুনামগঞ্জে উন্নয়ন আর সফলতার চিত্রর কিছু সালতামামী তুলে ধরা হল:
২০১৬ সালের ২৩ জানুয়ারী বাংলাদেশ শিশু একাডেমী আয়োজিত জাতীয় শিশু কিশোর প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন অব দি ইয়ার হওয়ায় গৌরব অর্জন করেছিল সুনামগঞ্জের মেয়ে অরুণিমা দাস। ’
২৩ ফেব্রুয়ারী ইস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রকল্পের আওতায় সুনামগঞ্জ-সিলেট আঞ্চলিক সড়কে একই দিনে ১৮টি সেতু উদ্বোধন করা হয়।   
৯ মার্চ বিসিআইসর সুনামগঞ্জের একমাত্র রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ছাতক সিমেন্ট ফ্যাক্টরি আধুনিকায়ন প্রকল্প  ৬৬৬ কোটি টাকার প্রকল্প  একনেকে অনুমোদন করা হয়। ’ করেছে। 
২২ মার্চ জেলার ২১২ মাধ্যমিক স্কুলে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন সম্পন্ন হয়।  ওই দিন জেলার বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীরা মেতেছিলো আন্দন্দের জেয়ারে। ’
২৬ এপ্রিল ২৯ কোটি টাকা ব্যয়ে সুনামগঞ্জে  টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণ কাজ উদ্ভোধন করা হয়। ’
৩ মে পিএসসির চেয়ারম্যান হিসাবে সুনামগঞ্জের কৃতি সন্তান  ড. মোহাম্মদ সাদিক  শপথ গ্রহন করেন।  ’
৪ মে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়নে ১৮৯০ কোটি ৮৫ লাখ টাকার একনেকে সিলেট বিভাগে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়।  প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৪ হাজার ১৬৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা।  এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ১৯ হাজার ২৬৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ও প্রকল্প সাহায্য ২৪ হাজার ৭৪৯ কোটি ৫ লাখ টাকা।  এছাড়া সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে ১৫২ কোটি ২৪ লাখ টাকা। 
৩১ মে মানবতা  পৌর শহরের সবজী বিক্রেতা আব্দুল কাইয়ুম (৪০) একটি অপরিচিত ও অভিভাবকহীন শিশুকে কোলে নিয়ে ট্রাফিক পয়েন্ট থেকে উকিল পাড়া পয়েন্ট পর্যন্ত রাস্তসড়কে দু’পাশের সকল ব্যবসায়ী ও পথচারীদের একে একে জিজ্ঞেস করেন এই শিশুটি কার? এভাবে সময় গড়িয়েছে প্রায় ৩ ঘণ্টা।  শিশুটির পরিচয় ও অভিভাবক খোঁজ না পেয়ে  এ বিষয়ে সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন।   
এদিকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুরের মাছিমপুর গ্রামের শিশুর বিধবা মা রোকেয়া বেগমের কোলে শিশু তাওহিদকে থানার সামনেই ওই দিন ফিরিয়ে দেন সবজী বিক্রেতা। 
৪ জুলাই জেলা শহরে ঐতিহ্য যাদুঘর দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।  সুনামগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র পুরাতন কোর্ট ভবনে স্থাপিত সুনামগঞ্জ ঐতিহ্য যাদুঘর পরিদর্শন করতে হলে ১০ টাকা মুল্যে টিকেট কাটতে হবে।  প্রতিদিন বিকাল ৩ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা রাখা হয় এই যাদুঘরটি।  যাদুঘরে ৫ টি গ্যালারিতে স্থান পেয়েছে সুনামগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধ, ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, সাংস্কৃতিক প্রেক্ষাপট, জীবন জীবিকা, পরিবেশ ও প্রকৃতির সহস্রাধিক নিদর্শন।  কালের  স্রোতধারায়  যার অধিকাংশই বিলুপ্তির পথে। 
ছাতক ও দোয়ারাবাজার সীমান্তে আরেকটি বড় সিমেন্ট কারখানা হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।  একই সঙ্গে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং সার কারখানাও তৈরি হবে।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরবে সফর করার পর ঐ দেশের বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী সৌদি আরবের আল রাজি গ্রুপ এমন আগ্রহ প্রকাশ করেছের্। 
জেলার গ্রামীণ সড়ক অবকাঠামো নির্মাণে এই বছর প্রায় ৩৩০ টাকা ব্যয় হচ্ছে।  আগামী অর্থ বছরে কেবল প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত সড়কে সেতু তৈরির জন্য ২৫০ কোটি টাকা চাওয়া হয়েছে।  সব মিলিয়ে ১১ উপজেলার প্রায় ২৪ লাখ মানুষের যোগাযোগ সড়কের স্বপ্ন পূরণের কাজ শুরু হয়েছে।  জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত পলাশ-চিনাকান্দি, লাউড়েরগড় ও মহেষখলা সড়ক।  যে সড়কটি ধর্মপাশা উপজেলা সদরের সঙ্গে যুক্ত হবে।  এই সড়কে প্রায় ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫ টি সেতু নিমার্ণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে।   এগুলো হচ্ছে- কল্যাণপুর খালের উপরে ৫৪ মিটার লম্বা সেতু, লাকমাছড়ায় ৫০ মিটার লম্বা সেতু, রঞ্জু ছড়ায় ৩৮ মিটার লম্বা সেতু ও চারাগাঁও ছড়ায় ৩২ মিটার লম্বা সেতু ও কলাগাঁও ছড়ায় ৭৫ মিটার লম্বা সেতু। ’
এছাড়া সড়ক যোগাযোগের সুবিধার্থে জামালগঞ্জ উপজেলায় রক্তি নদীর উপর সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৮০ মিটার লম্বা  সেতু, দিরাইয়ের মরা সুরমার উপরে ২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭০ মিটার সেতু, কালনী নদীর উপরে ৩১ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০০ মিটার সেতু, ধল কুতুব নদীর উপরে সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭৫ মিটার সেতু, দাঁড়াইন নদীর উপরে আড়াই কোটি টাকা ব্যয়ে ৮০ মিটার দীর্ঘ সেতু। 
পাগলা-বীরগাঁও সড়কের বীরগাঁও বাজারের কাছে সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৯০ মিটার, দামুতরতপি- ঘোরাডুম্বুর সড়কে এক কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬০ মিটার, বিশ্বম্ভরপুরে রক্তি নদীর উপর ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০০ মিটার, ছাতকের সিরাজনগরের বটের খালের উপর ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ১২০ মিটার, গণেশপুর-ইসলামপুর সড়কে ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০০ মিটার, কালীপুর-হায়দরপুর সড়কে ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে দুটি সেতু।  একটি ৭০ মিটার এবং অপরটি ৪৫ মিটার দীর্ঘ সেতু। 
অন্যদিকে, দিরাই উপজেলার পূর্বাঞ্চল এবং জগন্নাথপুর উপজেলার একটি অংশের মানুষের যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার জন্য দিরাই বাজার পার্শ্ববর্তী কালনী নদীর উপর নির্মিতব্য সেতু থেকে ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে জগদল, হোসেনপুর, পাইলকাপন, তেলিকোনা পর্যন্ত ৭ টি সেতুসহ ডাবল লেনের ১৬ কিলোমিটার সড়ক হচ্ছে। 
১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ছাতকের কালীপুর থেকে হায়দারপুর হয়ে কলকলিয়া সড়ক পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার সড়ক হচ্ছে।  অন্যদিকে, জগন্নাথপুরের নলুয়ার হাওরের মাঝখান দিয়ে যাওয়া বোড়াখালি-জগন্নাথপুর ডুবন্ত সড়কে ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৮ ফুট থেকে ১৬ ফুটে প্রশস্ত করা হচ্ছে।  একইভাবে সাচনাবাজার- বেহেলী ডুবন্ত সড়ককে ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ৮ ফুট থেকে ১৬ ফুটে প্রশস্থ করা হবে। 
সুনামগঞ্জ-জামালগঞ্জ-ধর্মপাশা সড়কের জয়নগর পর্যন্ত বিগত বছরে কাজ হয়েছিল।  এই অর্থবছরে জয়নগর থেকে জামালগঞ্জ হয়ে সেলিমগঞ্জ পর্যন্ত বিটুমিনের সড়ক হচ্ছে। 
সুনামগঞ্জের বিদ্যুৎ সংকট নিরসনে দু’শ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৩২/৩৩ কেভি বিদ্যুৎ গ্রীড সাবস্টেশন-এর নির্মাণ চলছে জোরেশোরে।  ১২ আগষ্ট থেকে চলছে বিদ্যুৎ সাবস্টেশনের নির্মাণ কাজ। ’
সুনামগঞ্জের শিল্পশহর ছাতক ও দোয়ারাবাজারবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে।  জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ১১২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা ব্যয়ে গোবিন্দগঞ্জ-ছাতক-দোয়ারা বাজার সড়কের ছাতকে সুরমা নদীর উপর সেতুর অবশিষ্ট কাজ সমাপ্তকরণ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে।  প্রায় ৮ বছর আগে ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে হওয়া সেতুর পিলারগুলোর উপরেই নতুন করে কাজ হবে। 
হাওর-বাওরের জেলা শহর সুনামগঞ্জের সৌন্দর্য বর্ধন করতে এবং আবাসিক সমস্যা দূর করার জন্য বাতিল হওয়া উপশহর প্রকল্পের নতুন জায়গা নির্বাচন করে ১৮ কোটি ৩৮ লাখ ১৬ হাজার টাকার প্রকল্প অনুমোদন করেছে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রলায়।  প্রকল্পে উপশহরের সড়ক, মাটিভরাট, ড্রেন নির্মাণ, কালভার্ট, ডিপ-টিউবওয়েল, বিদ্যুৎ, বিদ্যুতের সাবস্টেশন নির্মাণ, খেলার মাঠ, স্কুল ও কলেজ, মসজিদ, মন্দির ও কবরস্থান, পুকুর খনন ও গ্যাসের ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে।  এদিকে আব্দুজ জহুর সেতুর (সুরমা সেতু) পশ্চিম পাড়ে অচিন্তপুর ও উত্তর কুতুবপুর মৌজায় ১০ কোটি ১৯ লাখ ৯৩ হাজার ২০৯ টাকা ২ পয়সায় সাড়ে ১৬ একর জায়গা অধিগ্রহণ করা হয়েছে।  দরপত্র চূড়ান্ত হওয়ার পর আগামী ৯০ দিনের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। 
সুনামগঞ্জের হাওর এলাকার ঝুঁকিপূর্ণ নদী-খাল ও ক্লোজারগুলোয় রাবারড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে এলজিইডি।  এলজিইডি কর্তৃপক্ষ এই লক্ষ্যে ১৫ টি রাবারড্যামের প্রকল্প প্রস্তাবনা তৈরি করছে।  সুনামগঞ্জ এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী ইকবাল আহমদ বলেন,‘খরচার হাওরের ফসল রক্ষায় নির্মিত গত বছরের দুটি রাবার ড্যামের সফলতায় আমরা উৎসাহিত হয়েছি। 
বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড জেলার শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকা আগুয়াই-শ্বাসখাই বাজারের মধ্যবর্তী স্থানে ৩২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করেছে ‘দুর্গম হাওর সোলার বিদ্যুৎ প্রকল্প’।  ৪০০ গ্রাহক এই প্রকল্প থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ পাবে।   শাল্লার  হবিবপুর ইউনিয়নের আগুয়াই-শ্বাসখাই বাজারের মধ্যবর্তী স্থানে ৪ একর ভূমির উপর নির্মিত হয়েছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের দুর্গম হাওর সোলার বিদ্যুৎ প্রকল্প।  এই প্রকল্পে ২৩২২ টি সোলার প্যানেল ও ৫৪০ টি ব্যাটারী ব্যবহার করা হয়েছে।  এখান থেকে বিদ্যুৎ পাচ্ছে আগুয়াই, শ্বাসখাই বাজার, বিলপুর, সরসপুরসহ ১৬ টি পাড়ার ৪শ’ পরিবার। 
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ভূমিহীন ও অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বাসস্থান নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানীদের স্বাচ্ছন্দে বসবাস করার জন্য পাকা বসতবাড়ি  (বীর নিবাস) নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে।  ৯ লাখ ৯ হাজার ৮৪৭ টাকা ব্যয়ে জাতীয় পতাকার লাল সবুজের রং এর আদলে লাল-সুবজ রং দিয়ে রাঙা করে বীর নিবাসের রঙিন করা হয়েছে।   প্রতিটি বসত বাড়িতে রয়েছে ৩টি কক্ষ, ১টি রান্নার কক্ষ, ১টি বাথরুম, ঘরের পাশে টিউবওয়েল, ঘরের সামনে খোলা বারান্দা। 
সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলার ৫৪ জন মুক্তিযোদ্ধাকে বীর নিবাস নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। 
এছাড়াও বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন, ২৯ ফেব্রুয়ারি সুনামগঞ্জে হাওর ও জলাভূমি উন্নয়ন অধিদপ্তরের আঞ্চলিক কার্যালয়ের উদ্বোধন, ১ মার্চ  ৯ দিনব্যাপি অমর একুশে বইমেলা ও ৩ মার্চ জেলা গীতিকার ফোরামের ৮ম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে তিন দিনব্যাপি গীতিকার মেলা, ১১মে সুনামগঞ্জে পাসপোর্ট ও বিদ্যুৎ প্রকল্প অনুমোদন, ছাতকে নৌবন্দর উদ্বোধন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও জগন্নাথপুরের সড়ক উন্নয়নে প্রায় ৫০ কোটি টাকার প্রকল্প, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নে বিএডিসি কর্তৃক প্রায় ৩৮ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত মিছাখালী রাবার ড্যাম’র উদ্বোধন এবং জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে সভা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সম্পাদনায় : রফিকুল ইসলাম-১৪, এসএনএন২৪.কম

 

 


keya