৯:৩৫ এএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, সোমবার | | ২৯ সফর ১৪৪৪




রাউজানে জাতীয় শোক দিবসে আনোয়ারুল ইসলাম

‘বঙ্গবন্ধুর রক্ত আকাশের মর্মছেঁড়া অশ্রুর প্লাবনে একাকার হয়েছিল’

১৪ আগস্ট ২০২২, ১০:১০ এএম |


রাউজান প্রতিনিধি : রাউজান প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।  গতকাল শনিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১০টায় জলিলনগর কাজী প্লাজাস্থ রাউজান প্রেসক্লাবের কার্যালয়ে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রাউজান প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিউল আলম।  প্রধান অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম।  রাউজান প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম রমজান আলীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন রাউজান প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মীর আসলাম, সাবেক সভাপতি প্রদীপ শীল, সহ-সভাপতি নেজাম উদ্দিন, অর্থ সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান, সদস্য শাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ, লোকমান আনছারী, মোহাম্মদ আলাউদ্দিন, সাংবাদিক রায়হানুল ইসলাম।  উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ নেতা এম এন বছার, জাহাঈীর আলম, য্বুলীগ নেতা মোহাম্মদ এরশাদ প্রমুখ।  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, পাকিস্তানীরা পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিল।  পাকিস্তানের রেডিওতে হত্যাকান্ডের খবর ১ঘন্টা আগে প্রচার হয়েছিল ঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর খবর।  তা দ্বারা প্রমাণিত পাকিস্তানী দোষর হত্যার সাথে জড়িত।  কেন এই হত্যাকান্ড,জাতির পিতাকে স্ব-পরিবারে কেন হত্যা করা হয়েছিল।  কেন বাদ যায়নি, আড়াই বছরের শিশু ও চার বছরের শিশু।  অথচ বঙ্গবন্ধু দেশের স্বাধীনতার জন্য ১৬টা ঈদ জেলে কাটিয়েছিলেন।  জেল-জুলুম নির্যাতন সহ্য করে একটি রাষ্ট্র তথা লাল সবুজের পতাকা উপহার দিয়েছিলেন।  দেশ স্বাধীনের চার বছরের মাথায় ১৯৭৫ সালে জাতির জনককে প্রাণ দিতে হয়েছিল।  ১৫ আগস্ট ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে নিজ বাসভবনে সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে বুলেটের বৃষ্টিতে ঘাতকরা ঝাঁঝরা করে দিয়েছিল, তখন যে বৃষ্টি ঝরছিল,তা যেন ছিল প্রকৃতিরই অশ্রুপাত।  ভেজা বাতাস কেঁদেছে সমগ্র বাংলায়। ৭৫ এর পর সাংবাদিকরাই আওয়ামীলীগের পাশে ছিল বলেও মন্তব্য করেন তিনি।  বক্তারা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে ঘাতকের হাতে নিহত হন বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ স্ব-পরিবার।  সেদিন বাংলার আকাশ-বাতাস আর প্রকৃতিও অশ্রুসিক্ত হয়েছিল।  কেননা পঁচাত্তরের এই দিনে আগস্ট আর শ্রাবণ মিলেমিশে একাকার হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর রক্ত আর আকাশের মর্মছেঁড়া অশ্রুর প্লাবনে।  আলোচনা সভা শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুরালের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।  পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্ট শাহাদাত বরণকারী সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।  একই সঙ্গে দৈনিক সমকাল পত্রিকার আমৃত্যু সম্পাদক গোলাম সরওয়ারের চতুর্থ মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়। 


keya