১০:১৫ পিএম, ৫ জুলাই ২০২২, মঙ্গলবার | | ৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩




চট্টগ্রামে এইচএসসির উত্তরপত্রে পুনঃনিরীক্ষণ: নতুন পাসে ২৭ শিক্ষার্থী

১৪ মার্চ ২০২২, ১২:৪৫ পিএম |


নকিব ছিদ্দিকী:

২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে।  এতে ফেল থেকে পাস করেছেন ২৭ জন শিক্ষার্থী।  জানা যায়, করোনার কারণে দেড় বছর সরকারি ক্লাস না হওয়ায় ২০২১ খ্রিষ্টাব্দে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নেয়া হয় তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে।  কাঙ্খিত ফল না পেয়ে পরীক্ষার্থীরা গত ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করেছেন।  গত ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ খ্রিষ্টাব্দে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়।  এ পরীক্ষায় মোট ১৩ লাখ ৬ হাজার ৭১৮ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।  নিয়মিত ১৩ লাখ ৭১ হাজার শিক্ষার্থীর হিসেবে এইচএসসি ও সমমানে পাসের হার ৯৫ দশমিক ২৬ শতাংশ।  এবারই সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী জিপিএ ফাইভ পেয়েছিলেন।  এর সংখ্যা ১ লাখ ৮৯ হাজার ১৬৯।  মোট ১৪ লাখ ৩ হাজার ২৪৪ জন পরীক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন।  গত ২ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।  পরীক্ষা শেষের ৪৪ দিন পর ফল প্রকাশিত হয়।  গত ১৩ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত ফল অনুযায়ী, এইচএসসিতে চট্টগ্রাম বোর্ডে ৮৯ দশমিক ৩৯ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিল।  এবার মোট জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ১৩ হাজার ৭২০ জন।  রোববার (১৩ মার্চ) দুপুরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড চট্টগ্রামের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এ তথ্য জানান।   প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায়, ফল পরিবর্তন হয়েছে মোট ৫৯ শিক্ষার্থীর।  ফেল থেকে পাস করেছেন ২৭ জন।  আর নতুন করে জিপিএ ৫ পেয়েছেন আরও ৬ জন পরীক্ষার্থী।  ৫ হাজার ৯৭৯ জন শিক্ষার্থী ১৫ হাজার ২৩৭টি উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের জন্য আবেদন করেছিলেন। পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নারায়ন চন্দ্র নাথ জানান, ২০২১ সালের এইচএসসির উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের ফলাফলে ফেল থেকে পাস করেছেন ২৭ জন শিক্ষার্থী।  পুনঃনিরীক্ষণে মোট উত্তরপত্র ছিল ১৫ হাজার ২৩৭টি।  পরিবর্তিত উত্তরপত্রের সংখ্যা ১৪১টি।  তিনি জানান, নম্বর পরিবর্তন হয়েছে এমন পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৩৯ জন।  ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে ৫৯ জনের।  জিপিএ বেড়েছে কিন্তু সিজিপিএ বাড়েনি ৭ জনের।  সর্বমোট জিপিএ বেড়েছে ৬৬ জনের।  এছাড়া মার্কস বেড়েছে কিন্তু জিপিএ বাড়েনি ৭৩ জনের, ফেল থেকে ফেল কিন্তু মার্কস বেড়েছে ৭ জনের এবং গ্রেড পরিবর্তন হয়ে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬ জন।  ফেল করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে জিপিএ ৫ পায়নি কেউ। 


keya