১:২৩ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, শুক্রবার | | ৯ সফর ১৪৪৩




পরীমনির পাশে তারকারা

১৫ জুন ২০২১, ১০:০৪ এএম |


এসএনএন২৪.কমঃ বড়পর্দার অভিনেত্রী পরীমনির পাশে দাঁড়িয়েছেন শোবিজ তারকা, নির্মাতা ও সংশ্লিষ্ট অনেকে। 

এই অভিনেত্রীর সঙ্গে ঘটে যাওয়া অন্যায়ের বিচার চেয়ে সামাজিক মাধ্যমে সোচ্চার হয়েছেন তারা। 
নির্যাতনের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে হ্যাশ ট্যাগ জাস্টিস ফর পরীমনিও চালু করা হয়েছে। 

শোবিজের নানা অঙ্গনের মানুষ পরীমনির পক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।  তীব্র প্রতিবাদ তুলে বিচার চেয়েছেন সবাই।  

অভিনেত্রী জয়া আহসান
পরীমনির খবরটি শোনার পর থেকে বেদনা ও ধিক্কারে মনটা ভরে উঠেছে।  আমি কষ্ট পাচ্ছি মানুষ হিসেবে, মেয়ে হিসেবে, অভিনয়–জগতের একজন সদস্য হিসেবে। 

একবিংশ শতকের অনেকটা পথ পার হয়ে এসে এখনো মেয়েদের এমন লাঞ্ছনা দেখতে হবে? কোনো মানুষ, কোনো মেয়ের সঙ্গে এমন আচরণ করার মন, মানসিকতা বা দুঃসাহস কোত্থেকে আসে? যে চলচ্চিত্রশিল্পকে রক্তে–ঘামে আমরা তিল তিল করে গড়ে তুলছি, তা এতই নাজুক, এতই খেলো?

এ ঘটনা আমরা তলা পর্যন্ত বুঝতে চাই।  আমরা দেখতে চাই, এমন দুর্বৃত্তপনার বিচার হয়েছে।  দেখতে চাই, কোনো মেয়ে—তা সে যে–ই হোক—তার সঙ্গে এমন আচরণের অবসান হয়েছে। 

অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা
পরীর এই কান্না নিতে ভীষণ কষ্ট হচ্ছে।  একজন নারী হিসেবে, একজন সহকর্মী হিসেবে।  সম্মান একটা পিঁপড়ারও আছে।  পরীমনি একজন নায়িকা হ্যাঁ, বাংলা সিনেমার নায়িকা।  তো! তার সাথে যা খুশি তাই করা যাবে?

এই পিতৃতান্ত্রিক সমাজে যত বড় হচ্ছি তত নিজেকে অতি ক্ষুদ্রভাবে দেখতে পাচ্ছি।  একজন নারী সে ঘরের বউ হোক, পার্লারে কাজ করা মেয়ে হোক, বিশাল কাঁচের রুমে বসে অফিস করা মেয়ে হোক, গার্মেন্টস কর্মী হোক, ডাক্তার হোক, লেখক হোক, আর যদি নায়িকা হয় তাহলে তো কথাই নাই!

সবাই কে সহ্য করতে হয়, অসম্মান, সবাইকে।  পরীর পাশে আছি।  পরী তুমি ভাঙবে না প্লিজ।  কার জন্যে প্রতিবাদ করবো আর কার জন্যে করবো না তাও আমাদের ছকে বাঁধা।  কী যোগ বিয়োগের পৃথিবীরে বাবা। 

চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক
না মানে না।  তোমার এই খারাপ সময় থাকবে না, থাকবে তোমার সাহসিকতার প্রমাণ।  তোমাকে দেখে প্রতিবাদী হোক আমার দেশের সাধারণ মেয়েরা।  পরীমনির সাথে যে অন্যায় হয়েছে তার বিচার চাই। 

অভিনেতা রওনক হাসান
সে যেই হোক।  কোনো নারীর প্রতিই এমন আচরণ মেনে নেওয়া যায় না! আমরা পুরো ঘটনা জানতে চাই।  দোষী ব্যক্তি আইনের আওতায় এসেছে, তার বিচার হচ্ছে তা দেখতে চাই। 

অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি
মডেল তিন্নির কথা মনে আছে? হার্টথ্রব মডেল ছিল! কাঁচপুর ব্রিজের নীচে লাশ পড়ে ছিল! সব কিছুই জানা ছিল।  কিন্তু কিছুই হয়নি।  ক্ষমতার সংস্কৃতি সবচেয়ে আলোকিত। 

পরীমনি কয়টা প্রেম করবে, কয়টা বিয়ে করবে, কয়টা ডিভোর্স করবে, কার সাথে ডেট করবে, কে প্রিয় হবে, কাকে ঘৃণা করবে এটা একান্ত পরীমনির বিষয়।  অনেক বড় বড় ক্ষমতাধরদের সন্তানরা বিদেশে বসে কী করছে, তা সবাই না জানলেও, কেউ কেউ জানে।  মিডিয়ার মানুষদের জীবন তো আপনাদের মত হবে না।  তাদের হাসি/কান্না/সৌন্দর্য/আনন্দ/পছন্দ একটু হলেও অন্য বোধের জন্যই তো ভিন্ন ভিন্ন চরিত্র রুপায়ন করতে পারে।  আপনাদের বিকৃত রুচির খোরাক তারা নয়, এটা বুঝতে হবে!

পরীমনির ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হোক, দোষী যত ক্ষমতাধর হোক আইন তাকে চিনে নিক, এটা বিনীত প্রার্থনা। 

চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদ
না মানে না।  আইনের কাছে প্রত্যেক ব্যক্তি সমান এবং বৈষম্য ছাড়াই আইনের সমান সুরক্ষার অধিকারী।  

এছাড়াও চিত্রনায়ক বাপ্পি চৌধুরী, অভিনেত্রী শানারেই দেবী শানু, চিত্রনায়িকা অধরা খান, পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক, ইফতেখার চৌধুরী, কাবিরুল ইসলাম রানাসহ অনেকে পরীমনির পাশে দাঁড়িয়েছেন। 

এদিকে, সোমবার (১৪ জুন) পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার মামলায় অভিযুক্ত নাসির উদ্দিন মাহমুদসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ।