২:৩৭ এএম, ১০ আগস্ট ২০২২, বুধবার | | ১২ মুহররম ১৪৪৪




১৯ বছর পর সম্মেলন, উজ্জীবিত উত্তর জেলা যুবলীগ

কাফনের কাপড় নিয়ে প্রস্তুত থাকতে হবে: নিখিল

২৯ মে ২০২২, ০৮:০৯ পিএম |


নিজস্ব প্রতিবেদক :

সম্মেলন থেকে বেরিয়ে আসা নেতৃত্বকে কাফনের কাপড় মাথায় নিয়ে প্রস্তুত থাকতে নির্দেশনা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল। 

রোববার (২৯ মে) বিকেলে হাটহাজারী পার্বতী স্কুল মাঠে উত্তর জেলা যুবলীগের সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র হচ্ছে।  বিএনপি-জামায়াত দেশ ও জাতির কল্যাণ চায় না।  সম্মেলনে থেকে যে নেতৃত্ব বের হয়ে আসবে, তাদের কাফনের কাপড় মাথায় নিয়ে প্রস্তুত থাকতে হবে।  কারণ বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে ২০০১-০৬ সালের চেয়েও বেশি তাণ্ডব চালাবে।  তাই উত্তর জেলার সব আসনে জিতে এসে উন্নয়নের ধারা আব্যাহত রাখতে হবে। 

কাওমি আলেমদের উদ্দেশে নিখিল বলেন, আপনাদের বিএনপি-জামায়াত ব্যবহার করেছে।  সনদ দেবে বলে ঝুলিয়ে রেখেছে।  কিন্তু সনদ দিয়েছেন কওমি জননী শেখ হাসিনা।   

এ সময় বিপথগামীদের যুবলীগে স্থান হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের এ নেতা। 


কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেছেন, বাংলাদেশ কখনো শ্রীলঙ্কা হবে না।  কারণ দেশের যে উন্নয়ন হচ্ছে তার ঋণ ব্যাংক থেকে নেওয়া। 

অন্যদিকে, শ্রীলঙ্কা বোঝেনি কোনটা ব্যাংকের লোন আর কোনটি মহাজনের লোন।   

তিনি বলেন, দেশে যে বড় বড় বিনিয়োগ করা হয়েছে তা প্রায় পুরোপুরি শেষ।  এখন পদ্মা সেতুতে বিনিয়োগ শেষ।  পদ্মাসেতু এখন উল্টো টাকা দেবে।  এ ছাড়া কর্ণফুলী টানেলের যে প্রকল্প তাতে বেশিরভাগ কাজ শেষ।  অন্যদিকে মাদারবাড়ীতে গভীরসমুদ্র বন্দর হচ্ছে তাতেও সরকার বিনিয়োগ করছে।  বাংলাদেশের এসব প্রকল্পে ব্যাংক ঋণ নেওয়া হয়েছে মাত্র ২ শতাংশ সুদে।  যা ২০-২৫ বছরে পরিশোধ করতে হবে।  সুতরাং দেশের অগ্রগতি দেখে বোঝাই যায়, বাংলাদেশ কখনো শ্রীলঙ্কা হবে না। 

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।  বক্তা হিসেবে ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ।  বিশেষ অতিথি ছিলেন উত্তর জেলার সভাপতি এমএ সালাম, সাধারণ সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আতাউর রহমান, সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান, দিদারুল আলম ও খাদিজাতুল আনোয়ার, যুবলীগ চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নাঈম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জয়দেব নন্দী, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আদিত্য নন্দী ও কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নিয়াজ মোর্শেদ এলিট। 


keya