৩:৩৮ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২১, রোববার | | ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩




নাটোরে নির্মাণের ৯ মাসেই ভেঙ্গে পড়েছে কালভার্ট

৩০ নভেম্বর -০০০১, ১২:০০ এএম | মোহাম্মদ হেলাল


 

 মোঃ রাশেদুল ইসলাম, নাটোর : নাটোরের বাগাতিপাড়ায় নির্মাণের ৯ মাসের মধ্যেই ভেঙ্গে পড়েছে একটি কালভার্ট।  তবে কালভার্টটি কোন দফতর থেকে নির্মাণ করা হয়েছে তার কোন সঠিক তথ্য মেলেনি।  সংশ্লিষ্ট দফতরগুলো এর দায় এড়াতে সংবাদকর্মীদের তথ্য সরবরাহ করছেন না।  স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় এমনকি স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদফতর কেউ এ কালভার্টটির দায় নিতে চাননা।  কোন দফতর থেকে এই কালভার্টটি নির্মাণ করা হয়েছে সুনির্দিষ্ট করে তাও জানাতে পারেনি এ সব বিভাগগুলো। 

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার দয়ারামপুর ইউনিয়নের হাট গোবিন্দপুর এলাকার জয়বাংলা মোড় থেকে মধ্যপাড়া সড়কে প্রায় নয় মাস পূর্বে কালভার্টটি নির্মাণ করা হয়।  গত ৩ ডিসেম্বর শনিবার ওই সড়কে মাটি ভর্তি এক ট্রাক্টর পারাপারের সময় সেটি ভেঙ্গে পড়ে।  ৮ দিন অতিবাহিত হলেও কোন দফতর থেকে মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।  ফলে যান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।  স্থানীয় কয়েকজন যুবক দূর্ঘটনা এড়াতে সেখানে কলাগাছ দিয়ে নিশান টানিয়েছেন।  দ্রুত কালভার্টটি মেরামতের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। 

এ বিষয়ে দয়ারামপুর ইউপি সচিব অণূপ চক্রবর্তী জানান, কালভার্টটি ভাঙ্গার একদিন পর রবিবার তিনি জানতে পেরেছেন।  তবে কারা সেটি নির্মাণ করেছে তিনি তা জানেন না।  তিনি শুনেছেন কালভার্টটি উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ২০১৪-১৫ অর্থ বছরে কর্মসৃজন প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হয়েছে। 

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাকের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি এ সম্পর্কে পরে জানাবেন জানিয়ে ফোন কেটে দেন।  পরে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। 

বিষয়টি নিয়ে ওই দিন বৃহস্পতিবার বিকেলে এলজিইডি দফতরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলম মিয়া জানান, প্রকৌশলী কামরুজ্জামান প্রশিক্ষণে আছেন।  তবে ওই রাস্তাটি তাদের দফতরের নয়।  প্রকল্প অফিস করতে পারে বলে তিনি জানান। 

এবিষয়ে বাগাতিপাড় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার ফরহাদ আহমদ বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই।  খোঁজ নিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। 

 

সম্পাদনায় - নিশি / এসএনএন২৪.কম