২:২৫ এএম, ১৬ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার | | ৫ সফর ১৪৪০


নিখোঁজ এক শিশু কন্যার লাশ ভেসে উঠল শনির হাওরে

১১ আগস্ট ২০১৭, ০৯:৫৪ পিএম | নকিব


হাবিব সরোয়ার আজাদ,সিলেটঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে নিখোঁজের দু’দিনের মাথায় এক শিশু কন্যার লাশ শুক্রবার সন্ধায় ভেসে উঠল শনির হাওরে।  নিহতের নাম, সাজনা বেগম(৫)। ’ সে তাহিরপুরের পাশর্^বর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের হাশিমপুর (শান্তিপুর) গ্রামের ছোট সোনা মিয়ার শিশু কন্যা।  শুক্রবার রাত ৮টায় এ রিপোর্ট লিখা পর্য্যন্ত সিলেট থেকে আসা ৫ সদস্যের ডুবুরি দল অপর নিখোঁজ এক ব্যক্তি সহ দু’শিশু কন্যার কোন সন্ধান মেলাতে পারেনি। ’  

জানা গেছে, বিশ্বম্ভরপুরের হাশিমপুর (শান্তিপুর) গ্রাম থেকে তাহিরপুরের দক্ষিণকুল গ্রামে মেয়ে জামাইর বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠানে যাবার পথে শনির হাওরে ঢেউয়ের কবলে পড়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে ট্রলার ডুবির ঘটনায় তিন শিশু কন্যা  সহ ৪ জন নিখোঁজ হন।  ’ নিখোঁজরা হলেন, জেলার তাহিরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের শিক্সা গ্রামের মৃত রজব আলীর ছেলে হারুন মেস্তরী (৪৫) ও বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের পাঁচগাঁও বাগুয়ার মেহের জামানের তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া শিশু কন্যা তান্হা বেগম (১২), একই উপজেলার একই ইউনিয়নের হাশিমপুর (শান্তিপুর) গ্রামের বড় সোনা মিয়ার  শিশু কন্যা ঝুমা বেগম(৫) ও ছোট সোনা মিয়ার  শিশু কন্যা  সাজনা বেগম (৫)। ’

তাহিরপুর থানার ওসি শ্রী নন্দন কান্তি ধর শুক্রবার রাতে জানান, শনির হাওরের ধাওয়া বিলে ট্রলার ডুবির স্থান থেকে কমপক্ষ্যে ৭’শ গজ দুরে শুক্রবার সন্ধায় শিশু সাজনা বেগমের লাশ ভেসে উঠে। ’ এদিকে ট্রলার ডুবির পর সিলেট থেকে ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের ৫ সদস্যের একটি  ডুবুরি দল বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে ঘটনাস্থলে এসে নিখোঁদের সন্ধানে শনির হাওরে তল্লাশী চালায়।  বৈরী আবহাওয়ার কারনে রাত ১২টার দিকে ডুবুরি দল তল্লাশী কাজ স্থগিত করলে পরদিন শুক্রবার ফের সকাল ০৮ টা থেকে তল্লাশী কাজ শুরু করলেও শনির হাওরে ঢলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ও বৈরী আবহাওয়ার কারনে নিখোঁজদের তল্লাশী কাজ বার বার বাঁধার মুখে পড়ে।  এ অবস্থায় রাত ০৮টা পর্য্যন্ত ডুবুরি দল স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় তাদের তল্লাশী কাজ চালিয়ে যাবার পর স্থগিত করে দেয়।  

উল্ল্যেখ যে, জেলার বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের হাশিমপুর (শান্তিপুর) গ্রামের দ্বীন ইসলামের মেয়ে রীমা বেগমের সাথে তাহিরপুর উপজেলার বালিজুরী ইউনিয়নের দক্ষিণকুল গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে জাকিকের হোসেনের সাথে বুধবার বিয়ে দেয়া হয়। ’ কনের পিতা দ্বীন ইসলাম নীজ গ্রাম হাশিমপুর (শান্তিপুর), আলীপুর ও পাঁচগাঁও বাগুয়ার গ্রাম থেকে নিজ পরিবারের লোকজন ও আত্বীয়- স্বজন সহ ৩৫ জনকে নিয়ে শাহপুর ট্রলারঘাট থেকে একটি ইঞ্জিন চালিত খোলা ট্রলারে করে বৃহস্পতিবার বেলা ২টার দিকে কনের জামাইয়ের বাড়ি তাহিরপুরের দক্ষিণকুল গ্রামের উদ্দেশ্যে বৌ ভাত  (কনের হাতের ভাত অর্থাৎ স্থানীয় ভাবে নানি খেতে) অনুষ্ঠানে যাবার পথে রওয়ানা করলে বেলা সাড়ে ৩টা থেকে পৌণে ৪টার দিকে শনির হাওরে প্রবল ঢেউয়ের কবলে পড়ে ধাওয়া বিলের (জলমহালের) উওর পাশের ট্রলারটি ডুবে গেলে ৩১ নারী পুরুষ শিশুদের  জামালগঞ্জের সাচনা থেকে আনোয়াপুরের দিকে আসা বেশ কয়েকটি যাত্রীবাহি ট্রলার ও ফেরী নৌকা এগিয়ে গিয়ে উদ্ধার করলেও  তিন শিশু সহ ৪ জন নিখোঁজ হন। 


keya