১০:২৯ পিএম, ৫ জুলাই ২০২২, মঙ্গলবার | | ৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩




৬ পুলিশের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ:অপহরণ ও টাকা আদায়ের অভিযোগ

০৯ মে ২০২২, ১০:৩৬ এএম |


নকিব ছিদ্দিকী:

আনোয়ারায় ডিবি সদস্য পরিচয়ে এক ব্যক্তিকে তুলে নিয়ে টাকা আদায়ের মামলায় ৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।  রবিবার (৮ মে) চট্টগ্রামের চতুর্থ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফারজানা আকতারের আদালতে সাক্ষ্য দেন মামলার বাদী আবদুল মান্নান। অভিযুক্তরা হলেন- কনস্টেবল আব্দুল নবী, এসকান্দর হোসেন, মনিরুল ইসলাম, শাকিল খান, মো. মাসুদ ও মোর্শেদ বিল্লাহ।  রোববার (৮ মে) চট্টগ্রামের চতুর্থ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফারজানা আকতারের আদালতে সাক্ষ্য দেন মামলার বাদী আবদুল মান্নান।  আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০২১ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে আনোয়ারা উপজেলার পূর্ব বৈরাগ গ্রাম থেকে আবদুল মান্নানকে তুলে নিয়ে যায় ৮ তরুণ।  এ সময় তারা নিজেদের পুলিশের লোক বলে পরিচয় দেন।  এমনকি একজনের পরনে ‘ডিবি’ লেখা জ্যাকেটও ছিল।  পরে ওই তরুণরা আবদুল মান্নানকে পটিয়ার ভেল্লাপাড়া এলাকায় নিয়ে আটকে রাখে।  এ সময় আবদুল মান্নানের বিরুদ্ধে থানায় অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে জানিয়ে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন ওই আটজন তরুণ।  পরবর্তীতে তাদের ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা দেওয়া হলে তারা তাকে ছেড়ে দেন।  পরে পুলিশ সদস্য পরিচয়ে অপহরণ এবং মুক্তিপণের অভিযোগে গত ৭ ফেব্রুয়ারি আনোয়ারা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন আবদুল মান্নান।  মামলার সূত্র ধরে অনুসন্ধান চালিয়ে পুলিশ এ ঘটনার সঙ্গে ৬ পুলিশ কনস্টেবলের সম্পৃক্ততা পায়।  এ ঘটনায় তাদের গ্রেফতার করা হয়।  ছয় পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়।  গত ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহার আদালতে চার্জশিট গ্রহণ করেন এবং একই সঙ্গে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের আদেশ দেন।  রাষ্টপক্ষের আইনজীবী অজয় বোস রিংকু জানান, আনোয়ারায় ডিবি সদস্য পরিচয়ে আবদুল মান্নানকে তুলে নিয়ে টাকা আদায়ের মামলায় ৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের পর প্রথম সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে।  প্রথম দিনে আদালতে মামলার বাদী আবদুল মান্নান সাক্ষ্য দেন। 


keya