৩:৪৯ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, সোমবার | | ৪ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

ভোলায় নবম শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণকারী ‘ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজের’ ফাসিঁর দাবীতে মানববন্ধন

০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০২:৪০ পিএম | রাহুল


ভোলা প্রতিনিধিঃ ভোলা আব্দুর রব স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্রী ফারজানা আক্তার মীম (১৮) কে মিথ্যার প্রলোভন দেখিয়ে বিবাহ করার আশ্বাস দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে অভিযোগ এনে ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদের ফাসিঁর দাবীতে এক বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

আব্দুর রব স্কুল এন্ড কলেজের সামনে ওই বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সকলের মুখে কালো কাপড় বেঁধে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন।  

আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, ফারজানা মীমের ধর্ষণকারী জেলা ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজের ফাসিঁ চাই।  অবিলম্ভবে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবী জানাচ্ছি।  ধর্ষণ মামলার আসামি কিভাবে ঘুরাফেরা করছে, কেন পুলিশ গ্রেফতার করছে না।  ২৪ঘন্টার মধ্যে ‘ধর্ষিতার’ ধর্ষণকারী রিয়াজকে পুলিশ গ্রেফতার না করলে এরপরে আরো কঠোর মানববন্ধন দেয়া হবে বলেও কড়া হুশিয়ারি দিয়েছেন মানববন্ধনে অশংগ্রহণকারীরা। 

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান, সহকারী শিক্ষক জসিম উদ্দিন, বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক সাহিদুর রহমান।  অন্যন্য বিভাগের মহিউদ্দিন, শিক্ষিকা রাশেদা আফরোজ, ইসরাত জাহান, ফাতেমাতুজ জহরাসহ প্রমূখ। 

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ভোলা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে ধর্ষিতা বিচারের দাবীতে জেলা আওয়ামীলীগ অফিসসহ বাণিজ্যমন্ত্রী আলহাজ্ব তোফায়েল আহম্মেদ (এমপি) এর কাছে বিচার দিয়েছেন ধর্ষিতা।  এদিকে, শনিবার সকালে ভোলা প্রেসক্লাবের সভাপতি/সম্পাদক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ধর্ষিতা।  ঘটনার পরদিন রাতে ধর্ষিতা ভোলা থানায় পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে, ধর্ষিতা বাদী হয়ে ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ মাহমুদকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ভোলা সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।  যাহার মামলা নম্বর (৫৯)/১৭,। 

ঘটনার দিন ধর্ষিতা সাংবাদিকদের জানান, ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজের নিয়মিত ধর্ষণে আমি ২মাসের অন্তঃসত্ব।  আমি অন্তঃসত্ব হওয়ার ঘটনাটি রিয়াজ মাহমুদকে জানালে।  সে ব্যাপারটি কাউকে বলতে নিষেধ করেছে এবং আমাকে বিবাহ করবে বলে আশ্বাস দেয় রিয়াজ মাহমুদ।  কিন্তু অনেক দিন পার হতে না হতেই তিনি আমার সাথে কথা বলছেনা ফোন ধরছে না।  আমার সাথে নাকি তার কোন সম্পর্ক নেই।  এখন বর্তমানে আমি ২মাসের অন্তঃসত্ব  প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানাচ্ছি। 

এঘটনার বিচারের দাবী জানিয়ে বৃহস্পতিবার ভোলায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঘটনার দিন ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ মাহমুদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।  ওইদিন তার ব্যবহৃত মুঠোফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়।  তবে তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি (রিয়াজ মাহমুদ) নামের ওই আইডিতে তিনি একটি লেখা পোস্ট করে জানিয়েছেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে।  মেয়ে দিয়ে আমাকে হয়রানির চেষ্টা করছে এগুলো সব মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন। 

এই মেয়েকে আমার কাছে পাপন প্রথমে পাঠিয়েছে তার আগে ডিএনএ পরিক্ষা করানো হোক তার আমারটি। এব্যাপারে ভোলা সদর মডেল থানার (ভারপ্রাপ্ত) ওসি মীর খায়রুল কবীরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, থানায় মামলা হয়েছে মামলা নম্বও ৫৯/১৭ আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। 

ছবি এটার্চ- ফারজানা আক্তার মীম এর ধর্ষণকারী ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদের ফাসিঁর দাবীতে মানববন্ধন।