১২:৫৭ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৩৮

South Asian College

মুক্তিযুদ্ধকে হাতিয়ার বানিয়ে সরকার অপরাজনীতি করছে

০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৮:৩৩ পিএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কমঃ বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহামুদ চৌধুরী বলেছেন, তারেক রহমান সত্য কথা বলায় সরকার তাকে ভয় পায়।  তারেক রহমান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরায় তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে সরকার।  মুক্তিযুদ্ধকে হাতিয়ার বানিয়ে সরকার অপরাজনীতি করছে।  কিন্তু অবৈধ সরকারের সকল ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দেশবাসী আজ ঐক্যবদ্ধ। 

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে যে কোন ষড়যন্ত্র এদেশের দেশপ্রেমিক জনতা রুখে দিবে।  তিনি আরও বলেন, দেশ আজ মহাসংকটে অতিক্রম করছে।  চারদিকে গুম, খুন, হরিলুট, সম্পদের হরিলুট, কান্নার রোল, সব ধর্মের নারী, পুরুষ, ধনী গরিব এমন কি স্কুল ছাত্রী ও আজ নিরাপদে চলাফেরা করতে পারছে না।  দেশ যেন আতংকের জনপদে পরিণত হয়েছে।  বিচার বিভাগ তার স্বাধীনতার জন্য হাহাকার করছে।  সরকার ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য দেশের সর্বত্র বাকশালী কায়দায় প্রশাসনিক কার্যক্রম চালু করেছে।  দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব আজ হুমকির সম্মুখীন। 

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে দেশের উত্তরাঞ্চলে ভায়াবহ বন্যা কারণে লক্ষ লক্ষ মানুষ গৃহহারা হয়েছে।  ত্রানের অভাবে অনাহরে, অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছে।  কিন্তু সরকার সেই দিকে কোন খেয়াল না করে তাদের অবৈধ ক্ষমতার মসনদ টিকিয়ে রাখতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।  তিনি অদ্য ৪ সেপ্টেম্বর সোমবার বিকালে নগরীর কাজির দেউরিস্থ দলীয় কার্যালয় মাঠে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১০ম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি‘র উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় নগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন এর সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। 

সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ১/১১ সময় থেকে খালেদা জিয়া ও  তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল।  পরবর্তীতে এই সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।  কিন্তু সকল ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে তারেক রহমান বীরের বেশে এদেশের মাটিতে আসবেই।  দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সন্ত্রাসমুক্ত, দুর্নীতিমুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে একটি সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। 

প্রধান বক্তার বক্তব্যে কেন্দ্রীয় বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম বলেন, এই সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসে দেশকে একটি তাবেদারী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।  দুর্নীতি, দু:শাসন, খুন, গুম ও ধর্ষনে পরিমাণ অতীতের তুলনায় বহুগুন বৃদ্ধি করে ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমাণের স্বপ্ন দেখাচ্ছে বাঙালিকে।  বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে যতই ষড়যন্ত্র হোক না কেন তাকে স্তব্ধ করা যাবে না। 

কারামুক্তি দিবসের সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব এম এ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, মোহাম্মদ আলী, জয়নাল আবেদীন জিয়া, হারুন জামান, অধ্যাপক নুরুল আলম রাজু, সৈয়দ আহমদ, মফিজুল হক ভূইয়া, কামাল উদ্দিন কন্টাক্টর, সৌরভ কোম্পানী, মাহবুবু কমিশনার, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এস.এম সাইফুল আলম, কাজী বেলাল উদ্দিন, শাহ আলম, ইস্কান্দর মির্জা, আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী সিরাজ উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুর আলম মঞ্জুসহ মহানগর, থানা, ওয়ার্ড ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

এর আগে বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১০ম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন আয়োজিত দোয়া ও মিলাদ মাহফিল দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।