৩:৪৩ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, সোমবার | | ৪ মুহররম ১৪৩৯

South Asian College

গোয়ালন্দে ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে খালের বাধ অপসারণ

০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৭:০২ পিএম | রাহুল


আবুল হোসেন, গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে গতকাল বুধবার সকালে স্থানীয় পশ্চিম নলডুবি গ্রামের একটি খালের বাধ অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে।  ওই খালের ওপর কয়েক মাস আগে স্থানীয় এক ব্যক্তি বাধ দিয়ে মাছ শিকার শুরু করায় অত্র অঞ্চলের নিচু জমিতে আটকে থাকা পানি বের হতে পারছিলনা।  খালের বাধ অপসারণ করায় এলাকার অন্তত সহস্রাধিক বিঘা জমিতে রোপা আমনের চাষাবাদ করতে পারবে স্থানীয় কৃষকেরা। 

স্থানীয় অজয় বিশ্বাস, ইসমাইল মোল্লাসহ জানান, এলাকার আজিজুল শেখ ওই খালে প্রায় তিন মাস আগে প্রথমে মাটির বাধ পরে মাটিভর্তি বস্তা ফেলে।  এরপর জাল ও বাঁশের বেড়া দিয়ে মাছ শিকার শুরু করে।  এতে এলাকার কৃষি মাঠে জমে থাকা বৃষ্টির ও বর্ষার পানি আটকে যায়।  বাঁধের কারণে পানি প্রবাহ অনেকটা বন্ধের উপক্রম হয়।  মাঠ থেকে দ্রুত পানি না কমায় রোপা আমনের চাষ সম্ভব হচ্ছিলনা।  বাধ্য হয়ে এলাকার লোকজন স্থানীয় ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানকে অবগত করে। 

ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন বলেন, খালে বাধ দিয়ে মাছ শিকার করায় পানি প্রবাহ বন্ধের উপক্রম হলে এক থেকে দেড় হাজার বিঘা জমির রোপা আমনের চাষাবাদ ব্যাহত হচ্ছিল।  নিচু এলাকার সমস্ত পানি এই খাল দিয়ে বের হয়।  কিন্তু দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় পানি প্রবাহ বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে।  ফলে দ্রুত খালটি সংস্কার করা দরকার।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে স্থানীয় লোকজন সাথে করে বাঁধটি অপসারণের ব্যবস্থা করেছি।  এতে অত্র অঞ্চলের কৃষক রোপা আমনের চাষবাদ করতে পারবে। 

অভিযুক্ত আজিজুল শেখের ছেলে নাজিমদ্দিন শেক দাবী করেন, আমরা শুধুমাত্র খালে বাঁশের বেড়া দিয়ে সুতি জাল পেতে মাছ শিকার করছিলাম।  এতে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল না।  এলাকার কিছু ব্যক্তি ভূল বুঝে আমাদের বিরুদ্ধে কথা বলছিল।  স্থানীয় চেয়ারম্যানের নির্দেশে আমি নিজে থেকে বাঁধটি অপসারণের ব্যবস্থা করেছি।  গোয়ালন্দে ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে খালের বাধ অপসারণ করা হয়েছে।