১০:২৪ এএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭, রোববার | | ২৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

শামসুর রাহমান জন্মদিন উপলক্ষে আলোকচিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা সভা

২৮ অক্টোবর ২০১৭, ১১:৩৩ এএম | মুন্না


এসএনএন২৪.কম : এমন অমলিন হাসি সচরাচর দেখা যায় না। 

তাঁর কবিতার মতই শুদ্ধ, অনাবিল- বলছিলেন কবি শামসুর রাহমানের ছবি প্রদর্শনী দেখতে আসা মোঃ জহুরুল ইসলাম।  শুধু কবি শামসুর রাহমান নন ছবিতে উঠে এসেছে বাংলাদেশের সেই আন্দোলনমুখর দিনগুলো।  কবি শামসুর রাহমানকে ঘিরে সমসাময়িক শিল্পী, কবি।  সেইসঙ্গে শামসুর রাহমান শুধু যে কবিই নন তিনি যে রাজপথে সাধারণ মানুষের সঙ্গে আন্দোলনে সংগ্রামে এক সারিতে ছিলেন সেই সাক্ষ্যও দিচ্ছে জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনের উন্মুক্ত স্থানে শুরু হওয়া প্রদর্শনীর ছবিগুলো। 

কবি শামসুর রাহমানের ৮৯তম জন্মদিন স্মরণে জাতীয় জাদুঘরে শুরু হয়েছে আলোকচিত্র প্রদর্শনী।  সেইসঙ্গে ছিল শামসুর রাহমানের জীবন ও সাহিত্য নিয়ে আলোচনা সভা।  এদিকে, কবি শামসুর রাহমান স্মরণে বাংলা একাডেমিও আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল। 

দেয়ালজুড়ে কবি শামসুর রাহমানের ছবি।  একান্ত মুহূর্ত যেমন রয়েছে তেমনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সভা সমিতিতে তার ছবি।  ছবিতে উঠে এসেছে ১৯৯৬ সালের ১৬ ডিসেম্বরে স্বাধীনতার রজতজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এক আনন্দঘন মূহূর্ত, রয়েছে ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির প্রতিষ্ঠার অনুষ্ঠানে কলিম শরাফী, সৈয়দ শামসুল হক, রফিক আজাদ, কাইয়ুম চৌধুরী, নাসিরউদ্দিন ইউসুফ এমনি অনেকের সঙ্গে সভা-সমাবেশে বিশেষ মুহূর্ত।  এছাড়াও প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে কবির হাতে লেখা কবিতার পাতা, তার কবিতার বই এবং কবির সাক্ষাত্কারের ভিডিও প্রদর্শিত হচ্ছে প্রদর্শনীতে।  আলোকচিত্রী এম এ তাহেরের ১০০ আলোকচিত্র স্থান পেয়েছে এ প্রদর্শনীতে।  প্রদর্শনী চলবে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত। 

গতকাল সোমবার কবির জন্মদিনে জাতীয় জাদুঘর কবি শামসুর রাহমানের জীবন ও সাহিত্য বিষয়ে আলোচনা সভা ও আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করে।  কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে ছিল আলোচনা সভা।  এতে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু পরে তিনি প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন।  আলোচনায় অংশ নেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী, কবি নাসির আহমেদ, কবি মাহবুব আজিজ প্রমুখ।  সভাপতিত্ব করেন হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন।  স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী। 

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, শামসুর রাহমান নাগরিক কবি ছিলেন।  মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষা ক্ষোভ তার কবিতায় উঠে এসেছে।  তিনি সরকারের পোষা কবি ছিলেন না।  সেইজন্য তার কবিতা ছিল সত্যের শক্তিতে শাণিত। 

এদিকে, বাংলা একাডেমি কবি শামসুর রাহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।  অনুষ্ঠানে শামসুর রাহমানের কবিতার দেশ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. তারেক রেজা।  আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন অধ্যাপক বেগম আকতার কামাল এবং ড. অনু হোসেন।  সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।  অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হক, কবি কাজী রোজী এবং ড. আলী আসগর। 

খেলাঘরের ‘রবীন্দ্র-নজরুল-সুকান্ত’ জয়ন্তি পালন: কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় বাংলা সাহিত্যের তিন প্রধান কবির এক জন্মজয়ন্তী উত্সবের আয়োজন করে।  এ কবিত্রয় হলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ও কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য।  তাদের স্মরণে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্রে মিলনায়তনে ‘রবীন্দ্র-নজরুল-সুকান্ত জয়ন্তি ২০১৭’ শিরোনামে এ উত্সবের আয়োজন করা হয়।  এতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান প্রধান অতিথি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. সৌমিত্র শেখর বিশেষ অতিথি ছিলেন।  আয়োজক সংগঠনের সভাপতিমণ্ডলীর চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা পান্না কায়সারের সভাপতিত্বে আরো আলোচনা করেন খেলাঘরের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য প্রণয় সাহা ও সাধারণ সম্পাদক আবুল ফারাহ পলাশ।  সাংস্কৃতিক পর্বে ছিল নাচ, গান, আবৃত্তি ও একক অভিনয়।