৮:০২ এএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭, বুধবার | | ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সবুজ শহর আল আইনে হেমন্ত সাহিত্য উৎসব পালিত

০৬ নভেম্বর ২০১৭, ০৪:৩৬ পিএম | মুন্না


এম এনাম হোসেন, আরব আমিরাত, প্রতিনিধি : হেমন্তকাল যতই ধূসর আর বিবর্ণ হোক না কেন বাঙালির অস্তিত্বের সাথে, শেকড়ের সাথে, সাহিত্য ও সংস্কৃতির সাথে জড়িত ওতপ্রোতভাবে। 

একঝাক প্রবাসী কবি লেখক সাহিত্যিক সাহিত্যপ্রেমীদের এক বাঙ্গালিয়ানা মিলন মেলায়। প্রবাসের নির্মম যান্ত্রিক জীবনের কোলাহল পেরিয়ে প্রকৃতিকে সি্নগ্ধ  মধুর কাব্যিক উপমায় হেমন্তকে তুলে ধরেছেন।  সকল কাব্য বুননে চমৎকার অপরূপ রূপে।   কাব্য সৃষ্টির আলোয় আমাদের সমাজ আলোকিত ও সমৃদ্ধি হোক এই প্রত্যয় নিয়ে উদযাপিত হল হেমন্ত সাহিত্য উৎসব। 

আরব আমিরাত আল আইন শহরে প্রবাসী বাঙালিদের সাংস্কৃতিক ও সাহিত্য  সংগঠন। 

জাতীয় কবিতা মঞ্চ, ও যুগান্তর স্বজন সমাবেশ  সংযুক্ত আরব আমিরাত এর উদ্যোগে গত ৪ নভেম্বর আলা উদ্দিন রেস্টুরেন্ট হল রুমে অনুষ্টিত হয় এই বর্ণিল আয়োজন।   অনুষ্ঠানটি শুরু হয় স্থানীয় সময়  রাত ৯ টায়।  বিপুলসংখ্যক প্রবাসী বাঙালির উপস্থিতিতে এই অনুষ্ঠান পরিণত হয় স্থানীয় বাঙালিদের এক মিলনমেলায়।  ৪ ঘণ্টার এই আয়োজনে স্বরচিত কবিতা পাঠ, হেমন্তের গান সাহিত্যকথা ,হেমন্ত কালের সৌন্দর্য সুন্দর ভাবে ফুটে উঠে ছিল হেমন্ত সন্ধ্যায়, কবিতা পাঠ  সুর ও ছন্দে মুখরিত হয়ে উঠেছিল  মরুরদেশ আরব আমিরাতের  সবুজ অরণ্যের শহর আল আইন। 

এতে জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব আমিরাতের সভাপতি কবি ও কলামিস্ট মোহাম্মদ মুসার সভাপতিত্বে এবং কবি  এম.এ. খায়ের নিজামী  সঞ্চালনায় হেমন্ত সাহিত্য উৎসব বর্ণিল ও নান্দনিক হেমন্তের ঐশ্বর্য অনুষ্টিত হয় । 

শুভ  উদ্বোধন  করেন উদ্বোধক বিশিষ্ট সমাজ সেবক, কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত সি আই পি’র সম্মাননা প্রাপ্ত ফখরুল ইসলাম খান। সি আই পি  বলেন, প্রবাসে  আবহমান বাংলার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালিত হয় এটা আমাদের গৌরবের, আমাদের জাতি সত্তার পরিচায়ক, আমার গ্রাম্য বেলার জীবনে আমি দেখেছি হেমন্তের ফসল আঁকা মেঠো পথ ধরে কত আনন্দ উৎসবের ধারা বয়ে যেতে  মেঠো পথে পথে বাঁশরীর সুরের তানে বাতাস ফসলের নৃত্যে জীবন খুঁজে পায় প্রকৃতি প্রদত্ত জীবনের অপূর্ব স্বাদ।  এমন মায়াবী  দিনে আজি সেই স্মৃতিময় হারানো দিনের কথা মনে পড়ে জাতীয় কবিতা মঞ্চ কে সাধুবাদ জানাই প্রবাসে সাহিত্য সংস্কৃতির এক নতুন ধারা প্রণয়ন পরিবর্ধন সংযজন করার জন্য। 

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে অথিতিকে ফুল দিয়ে মঞ্চে স্বাগত জানান  জাতীয় কবিতা মঞ্চ ও দৈনিক যুগান্তর স্বজন সমাবেশ আরব আমিরাত'র সাধারণ সম্পাদক  ও কবি নজরুল সাহিত্য পরিষদ আরব আমিরাত শাখা সভাপতি কবি ও সাংবাদিক মোহাম্মদ মনির উদ্দিন মান্না ও মোহাম্মদ সালা উদ্দিন, সোহেল, সোহেল রানা, নাজমুল ইসলাম,টিপু। 

স্বাগতম বক্তব্যে রাখেন জাতীয় কবি মঞ্চের উপদেষ্টা কবি জানে আলম জাহাঙ্গীর, দৈনিক যুগান্তর স্বজন সমাবেশ উপদেষ্টা ডাঃ শেখ শামসুর  রহমান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ জাফর উদ্দিন ভূঁইয়া।  শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন সাংস্কৃতিক সম্পাদক সোহেল রানা ও সহ সভাপতি মোহাম্মদ সালা উদ্দিন । 

অনুষ্টানের প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম জেলা পরিযদ এর সম্মানিত সদস্য বিশিষ্ট  শিক্ষা অনুরাগী বাংলাদেশ থেকে আগত শেখ মোহাম্মদ আতাউর রহমান বলেন নাগরিক সভ্যতার জাঁতাকলে আবহমান কালের সংস্কৃতির অনেকটাই হারিয়ে গেছে।  হারিয়ে যাওয়া পথ নিরন্তর খোঁজের সন্ধানে কবিতা মঞ্চের প্রবাসী কবি সাহিত্যিকদের অবদান অম্লান।  প্রবাসের মাটিতে সকলের শাশ্বত প্রেম-প্রীতি ভালোবাসাকে বিনা সূতার মালায় গেঁথে দেশপ্রেম প্রীতির বন্ধনে মিলিত হন।  আপনাদের  মাতৃভূমির প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং দেশপ্রেম আমাকে মুদ্ধ করেছে। 

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব আমিরাত এর প্রধান উপদেষ্টা সাহিত্য অনুরাগী বিশিষ্ট দুবাই শিল্পপতি আলহাজ এস এম মাজহার উল্লাহ্‌ মিয়া বলেন, বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও উত্তরাধিকার হিসেবে  জাতীয় কবিতা মঞ্চ আগামীতে দুর্লভ সুনাম বয়ে আনার আহবান জানাই।  বিশ্বায়নের যুগে শত সংস্কৃতি আগ্রাসনেও যেন আমাদের আবহমান কালের মূলধারার সংস্কৃতি চির অম্লান হয়ে থাকে সেই পথ হোক কণ্টক হীন। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি ও আবৃতিকার মোহাম্মদ মনসুর আলী,মিরসরাই সমিতি এর প্রধান উপদেষ্টা আবুল কাশেম, মিরসরাই সমিতি উপদেষ্টা মোহাম্মদ আক্তার উদ্দিন পারভেজ, মিরসরাই সমিতির সহ সভাপতি  হেলাল উদ্দিন, কবি মির্জা মোহাম্মদ আলী, মজিবর রহমান খান