৯:৫২ এএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্ট এ সামিট কোম্পানীর (এনইপিসিএস)এর ম্যানাজারকে লাঞ্চিত

১৫ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:০৮ এএম | সাদি


মিজানুর রহমান সোহেল, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্ট এ সামিট কোম্পানীর (এনইপিসিএস)এর ম্যানাজারকে কথামতো কাজ না দেয়ায় লাঞ্চিতের ঘটনা ঘটেছে।  ওই ঘটনাটি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানালে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও থানার ওসি ঘটঁনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করেছেন।  ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই পাওয়ার প্লান্টের পার্শ্বে কুশিয়ারা নদীর তীরবর্তী স্থানে। 

সুত্রে প্রকাশ, বিবিয়ান পাওয়ার প্লান্ট কাজ শুরুর দিকে এলাকার এক শ্রেণীর লোকেরা কাজে জন্য কোম্পানীর লোকদের বিভিন্ন সময় চাপ সৃষ্টি করে আসছিল।  তাদের দাবি মেটাকে ইতোমধ্যেই স্থানীয় কিছু লোকদের কাজ দেয়া হয়েছিল।  এর পরও এলাকার এক শ্রেণীর সন্ত্রাস প্রকৃতির লোকেরা কোম্পানীর লোককের বিভিন্ন সময় কাজ পাওয়ার বাহানা করে রাহাজানি করে আসছে। 

তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার পারকুল গ্রামের তবারক উল্লার পুত্র মোঃ আনহার মিয়া,বজলু মিয়া, মৃত আইন উল্লার পুত্র মোঃ রিপন মিয়া, মৃত আছই উল্লাার পুত্র মোঃ মুহিক, সুজাত উল্লার পুত্র মোঃ সাজিদ মিয়া, তাজপুর গ্রামের জনৈক উমর আলী গংরা মিলে সামিট কোম্পানীর (এনইপিসিএস)এর ম্যানাজার ভিক্টরকে কাজ না দেয়ায় লাঞ্চিত করেন। । 

ওই ঘটনাটি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা ওই সংবাদটি তাৎক্ষনিকভাবে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা তাজিনা সারোয়ারকে জানালে তিনি নবীগঞ্জ থানার ওসি এসএম আতাউর রহমানকে নিয়ে একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন।  ঘটনাস্থলে এসে কোম্পানীর  ম্যানাজার ভিক্টরের কাছ থেকে বিষয়টির সত্যতা পেয়ে কোম্পানীর লোকদের পাশে থাকবেন বলে আশ্বস্থ করেন।  এবং পরবর্তীতে যদি কোন ধরনের হুমকি ধামকি দেয়া হয় তাহা হলে হুমকি দাতাদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করবেন বলে কোম্পানীর লোকদের বলে যান।  এবং বুধবার থেকে প্রশাসনিকভাবে নজরদারি থাকবে বলে জানা গেছে। 

এব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা তাজিনা সারোয়ারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পাওয়ার প্লান্টের লোকদের সাথে সমস্যা বিষয় শোনে ঘটনাস্থলে যাওয়ার পুর্বেই বিষয়টি শান্ত হয়।  তিনি আরো বলেন সামিট কোম্পানী কাজ শুরুর দিকে এলাকার সন্ত্রাস প্রকৃতির লোকেরা বাঁধাগ্রস্থ করে আসছিল।  তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার এ ধরনের ঘটনা হচ্ছে বলে তিনি জানান।