৯:৪৩ এএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

নির্বাচনী পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরা হলো না দুই শিক্ষার্থীর

১৫ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:৫০ এএম | সাদি


আবু তালেব, হাটহাজারী প্রতিনিধি : কলেজের নির্বাচনী পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরা হলো না দুই শিক্ষার্থীর।  ঘাতক বাস কেড়ে নিল দুই শিক্ষার্থীকে দিতে হলো তরতাজা প্রাণ।  নিহতরা হলেন হাটহাজারী উপজেলার বুড়িশ্চর ইউনিয়নের কুয়াইশ-বুড়িশ্চর শেখ মোহাম্মদ সিটি করপোরেশন কলেজের শিক্ষার্থী আরেফা আবেদিন খান ও নিলয় সরকার।  মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে চট্টগ্রাম-রাউজান-কাপ্তাই সড়কে এ দূর্ঘটনা ঘটে।    

প্রত্যক্ষদর্শী ও মদুনাঘাট পুলিশ ফাঁড়ি সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার এইচএসসি নির্বাচনী পরীক্ষা শেষে চট্টগ্রাম-রাউজান-কাপ্তাই সড়ক দিয়ে ওই কলেজের শিক্ষার্থীরা বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিল।  এ সময় কুয়াইশ-বুড়িশ্চর শেখ মোহাম্মদ সিটি করপোরেশন কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক জিন্নাত পারভিন সাকি তার নিজস্ব প্রাইভেট কারটি চালিয়ে ক্যাম্পাস ত্যাগ করার সময় গাড়ির জন্য অপেক্ষমান শিক্ষার্থীদের ধাক্কা দিলে তারা ওই সড়কের উপর ছিটকে পড়ে।  এমতাবস্থায় চট্টগ্রাম শহরমুখি একটি বাস (চট্টগ্রাম জ ১৫২৯) শিক্ষার্থীদের চাপা দেয়।  এতে ৩ শিক্ষার্থী মারাত্বকভাবে আহত হয়। 

আহতাবস্থায় সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে তাদেরকে চমেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।  নিহত ওই দুই শিক্ষার্থীরা হলেন চাঁদগাও থানাধীন ৪নং ওয়ার্ডের চৌধুরী বাড়ির জয়নাল আবেদীনের কণ্যা আরেফা আবেদিন খান রিপা ও পাশ্বাবর্তী রাউজান উপজেলার বিনাজুরী ইউনিয়নের নবীন মহাজন বাড়ির অনুপম সরকারের পুত্র নিলয় সরকার।  এছাড়া এ ঘটনায় আরো ১ জন আহত আছেন।  তার নাম মো. হোসাইন খান।  সে চমেক হাসপাতারে চিকিৎসাধীন আছে।  পুলিশ ঘতক বাসটি ও ওই বাসটির চালককে জনতার সহযোগিতায় আটক করেছে বলে এ প্রতিবেদককে জানান মদুনাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ আরিফ। 

এদিকে রাত ৮টার দিকে শিক্ষার্থীদের মৃত্যুর জন্য প্রভাষক জিন্নাত পারভিন সাকিকে দায়ী করে এবং অপসারণ চেয়ে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করে চমেক হাসপাতালের সামনে কলেজের সাধারণ শিক্ষর্থীরা বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করে।  খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ভূদ্ধ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।  এ সময় পুলিশ ওই শিক্ষিকাকে আইনে আওতায় আনা হবে এমটা জানালে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা তাদের অবরোধ তুলে নেয় বলে জানান চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সদস্য মনসুর আলম। 

কলেজের প্রভাষক জিন্নাত পারভিন সাকি এ ঘটনার সাথে জড়িত কিনা জানতে চাইলে কুয়াইশ-বুড়িশ্চর শেখ মোহাম্মদ সিটি করপোরেশন কলেজের অধ্যক্ষ জয়নুল আবেদীন মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, এঘটনায় ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং প্রভাষক জিন্নাত পারভিন সাকিকে ১ (এক) মাসের জন্য সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 

অন্যদিকে মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর খবর পেয়ে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রশাসক ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ইউনুস গণি চৌধুরী, রাউজান পৌরসভার মেয়র দেবাশীষ পালিত, কেন্দ্রীয় যুবলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক জাফর আহমেদসহ অসংখ্য নেতৃবৃন্দ চমেক হাসপাতালে ভিড় জমায় নিহত শিক্ষার্থীেেদর দেখার জন্য। 

দুই শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যুতে নিহতদের পরিবারে চলছে শোকের মাতম।  এছাড়া নিহত শিক্ষার্থীদের বন্ধু-বান্ধব ও শিক্ষকদের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।  সড়ক দূর্ঘটনায় নিহতেদের শেষ বারের মত এক নজর দেখতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা ভিড় জমায় চমেক হাসপতালে।