১০:২৫ এএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | | ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

শতভাগ পাকা রাস্তা সমৃদ্ধ ঘোষণা করা হবে : সিটি মেয়র

২০ নভেম্বর ২০১৭, ০৬:১৬ পিএম | রাহুল


স্টাফ রিপোর্টার : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পঞ্চম নির্বাচিত পরিষদের ২৮তম সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, নগরবাসীর প্রতি অঙ্গীকার ছিল আমার মেয়াদের মধ্যে ৪১ ওয়ার্ডের সব কয়টি সড়ক পাকাকরণ করা হবে। 

ওয়ার্ডে কোন কাঁচা রাস্তা থাকবে না।  চলতি অর্থ বছরের মধ্যেই নগরীর কয়েকটি ওয়ার্ডকে ‘শতভাগ পাকা রাস্তা সমৃদ্ধ’ ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।  সে লক্ষ্যেই আমরা এগিয়ে চলছি।  এই অর্থ বছরে ২২০টি প্রকল্পের কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে।  প্রায় ৫৪ কোটি ৫৫লাখ ৭৩ হাজার টাকা ব্যয়ে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়িত হবে।  তাছাড়া ৮৯ কোটি ৮ লাখ ৮২ হাজার টাকা ব্যয়ে আরো ৩৮৩টি প্রকল্পের দাপ্তরিক কার্যবক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

তিনি কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের নিজ নিজ ওয়ার্ডে যে প্রকল্পগুলোর কার্যাদেশ সম্পন্ন হয়েছে।  সেগুলো বাস্তবায়নের সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষন করবেন।  এডিপি,জাইকা বা রাজস্ব বরাদ্দ থেকে গৃহিত প্রকল্পগুলোর বাস্তব অবস্থা কি, কোন ওয়ার্ডে কয়টা প্রকল্প চুড়ান্ত হয়েছে-তা সম্যক পর্যাবেক্ষণ সাপেক্ষে আপনারা আমাকে লিখিত প্রতিবেদন দাখিল করবেন।  এসব প্রকল্প কাজে নিয়োজিত ঠিকাদারদের সাথে প্রকল্প বাস্তবায়নের ব্যাপারে আলোচনা করা হবে।  গুণগত মান ও সরবরাহের দিক দিয়ে চসিকের নিজস্ব অ্যাসফল্ট প্ল্যান্ট সর্বাধুনিক।  ঠিকাদাররা যাতে এ প্ল্যান্ট থেকে কার্পেটিংয়ের মালামাল ব্যবহার করে সে বিষয়টি বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে।  প্রকল্প বাস্তবায়ন যাতে নির্দিষ্ট সময়ে সম্পন্ন হয়।  নগরবাসী যাতে সময়ের মধ্যে সেবা সুবিধা ভোগ করতে পারে সেদিকে জনপ্রতিনিধিদের সার্বিক দৃষ্টি রাখা জরুরী। মনে রাখবেন জনগণের কাছে আমাদের জবাবদিহিতা আছে। 

সাধারণ সভায় তিনি বলেন, মাননীয় বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর বদান্যতায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রক্রিয়া যন্ত্র পেতে যাচ্ছে।  যন্ত্রটি পেলে নগরের আলোকায়ন ব্যবস্থায় আরো গতিশীলতা আসবে বলে আমার বিশ্বাস।  ৫৮ কি.মি সড়ক আলোকায়নের জন্য পিডিবি ৩১২০টি এলইডি আলোকবাতি প্রদান করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।  তাছাড়া ঢাকার একটি প্রতিষ্ঠান আমাদেরকে প্রায় শতাধিক এলইডি আলোকবাতি প্রদানের আশ্বাস দিয়েছে।  আগামী দেড়/দুই বছরের মধ্যে পুরো নগরীকে শতভাগ আলোকায়নের আওতায় আনার প্রত্যয়ে আমরা কাজ করছি। 

দীর্ঘ সময় ধরে শুকনো মৌসুম এবং সেবা সংস্থাসমূহের উন্নয়ন কর্মকান্ড চলমান থাকায় সড়কে ধুলো-বালির প্রাদুর্ভাব জনভোগান্তির সৃষ্টি করছে।  শ্বাসকষ্ট,এ্যাজমাসহ নানা রোগে জনযোগাযোগের বেহাল অবস্থা।  সিটি মেয়র নগরীর সড়কগুলোতে সকাল-সন্ধ্যা নিয়মিত দু’বার পানি ছিটানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছেন।  সভায় প্যানেল মেয়র,কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলরসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।