৯:০০ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

চবি উপাচার্যের সাথে নবগঠিত চিটাগং ইউনিভার্সিটি রাইটার্স ক্লাবের সাক্ষাত

২১ নভেম্বর ২০১৭, ০৪:২৩ পিএম | রাহুল


এসএনএন২৪.কম : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাহিত্য-পিপাসু শিক্ষার্থীদেরকে শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চায় উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে নবগঠিত সংগঠন ‘চিটাগং ইউনিভার্সিটি রাইটার্স ক্লাব’-এর সদস্যবৃন্দ সোমবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন। 

এ সময় এ ক্লাবের সদস্য হৃদয় ইসমাইল, মো. জাহেদুল আলম, মামুন মুনতাসির, শাওন জামসেদ, মো. সালাউদ্দিন, নাহিদ নেওয়াজ, অহিদুল ইসলাম, মো. নুরুউদ্দিন, গাজীউর রহমান, মাহফুজুর রহমান ও সৃজন দীপ্রপাল উপস্থিত ছিলেন। 

উপাচার্য তাদেরকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।  তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, শিল্প-সাহিত্য ও সংস্কৃতি জীবনের দর্পণ।  এ সকল সৃজনশীল কর্মকান্ড চর্চার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা হয়ে ওঠে মানবব্রতী।  তাদের অন্তর হয় বিকশিত, হৃদয় হয় ঐশ্বর্যমন্ডিত এবং মেধা-মনন হয় শাণিত।  উপাচার্য এ নবগঠিত ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে এবং ব্যক্তিগত জীবনে একজন সচেতন লেখক, সাহিত্যপ্রেমিক, কবি, প্রবন্ধকার, নাট্যকার-নাট্যসংগঠক এবং সর্বোপরি সমাজ বিজ্ঞানী হিসেবে তাঁর বাস্তব অভিজ্ঞতা আলোকপাত করে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আধুনিক সমাজ-সভ্যতা বিনির্মাণে কলমের সৈনিক এবং শব্দসৈনিকদের অসামান্য অবদান অনস্বীকার্য।  দূরদৃষ্টিসম্পন্ন স্থান, কাল, সময় সচেতন নির্ভীক লেখকরাই মা-মাটি মানুষের ভালোবাসাকে অন্তরে ধারণ করে প্রতিষ্ঠা করেছে মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মনুষ্যত্বের ভিত্তি।  তাই আমাদের শিক্ষার্থীদের বিত্ত-বৈভব নয়, মনের ঐশ্বর্যে আলোকিত হতে হবে।  তাদের সৃজনশীল কর্মকান্ড পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রকে আলোর পথে এগিয়ে নিয়ে যাবে এটাই প্রত্যাশিত। 

তিনি আরও বলেন, তাদেরকে হৃদয় দিয়ে এ অনিবার্য সত্য ধারণ করতে হবে যে, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি মহাকালের মহানায়ক রাজনীতির মহাকবি স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের অমূল্য সম্পদ এবং রবীন্দ্র-নজরুল আমাদের সাহিত্য গগনের আলোর পথের দিশারী।  উপাচার্য ক্লাবের ভবিষ্যত কর্মকান্ডে তাঁর সক্রিয় অংশগ্রহণ এবং সৃজনশীল প্রকাশনায় তাঁর সার্বিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।  

Abu-Dhabi


21-February

keya