৮:৫৩ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্ব্র রক্ষায় আজীবন সংগ্রাম করেছেন সালাহদ্দীন কাদের চৌধুরী

২৮ নভেম্বর ২০১৭, ১১:১১ এএম | মুন্না


এম এনাম হোসেন, আরব আমিরাত প্রতিনিধি : ভিন্ন দেশী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে আপোষহীনতার সাথে আমরন লড়ে যাওয়া জাতীয়তাবাদী অঙ্গনের বীর পুরুষ ও স্বাধীনতা স্বার্বভৌমত্ব্রের অতন্দ্র প্রহরী শহীদ সালাহউদ্দীন কাদের চৌধুরীর দ্বিতীয় শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম সংযুক্ত আরব আমিরাতে দুবাই শাখার উদ্দ্যগে দোয়া মাহফিল ও স্মরন সভা পালন করেছে। 

দুবাই শাখার উদ্দ্যগে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আরব আমিরাতের যূগ্ম-আহবায়ক ও দুবাইয়ের নব নির্বাচিত সভাপতি এম এনাম হোসেন। সভায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দ্যশে টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম ভাইস-চেয়ারম্যান ও সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী। 

আলহাজ্ব গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী বলেন, শহীদ সালাহদ্দীন কাদের চৌধুরীর অপরাধ কি ছিল দেশের মানুষ তা ভাল করে জানে।  যে বানোয়াট অভিযোগে তাকে হত্যা করা হয়েছে সে অভিযোগটি চট্টগ্রামের এবং একটি নির্দিষ্ট সম্প্রাদায়ের করা অভিযোগ ছিল।  নির্দিষ্ট ঐ সম্প্রাদায়কে পুজি করে আজ আওয়ামীলিগ যে দূ:সাহস দেখিয়েছে অবশ্যই তার জন্য একদিন জাতির কাছে জবাব দিতে হবে। 

তিনি প্রশ্ন সহকারে আরো বলেন, শহীদ সালাহউদ্দীন কাদের চৌধুরী এত জঘন্যতম অপরাধী হলে কেন চট্টগ্রামের মানুষ বিভিন্ন আসন থেকে আমরন সংসদ সদস্য নির্বাচিত করে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে জাতীয় সংসদে পাটিয়েছিলেন।  যখন তাকে হত্যা করা হয় তখন ও শহীদ সালাহউদ্দীন কাদের চৌধুরী জনগনের প্রত্যক্ষ ম্যান্ডেটে নির্বাচিত একজন সংসদ সদস্য।  সুতারাং ইতিহাস এবং পাপ কাকে মাপ করে না । সেদিন আর বেশি দূরে নয়। আমরা জনগনের জন্য রাজনীতি করি সুতরাং সে জনগনই ষড়যন্ত্রকারীদের মূখোশ একদিন উম্মোচন করবে। এবং বাংলাদেশের জনগনই এই হত্যাকান্ডের সঠিক বিচার করবে বলে আমরা আশা করি। 

সভায় প্রধান অথিতি ছিলেন, বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধান উপদেষ্টা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত বিএনপি’র সভাপতি বিশিষ্ট লেখক প্রকৌশলী রফিক সিকদার।  প্রধান বক্তা ছিলেন, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র অন্যতম সহ-সভাপতি ও সেচ্ছাসেবক দল চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ মোহাম্মদ আজম উদ্দীন। 

বিশেষ অথিতি ছিলেন, সংগঠনের সংযুক্ত আরব আমিরাতের আহবায়ক আলহাজ্ব শরাফত আলী, সদস্য সচিব মোহাম্মদ জাকির হোসেন খতিব, সিনিয়র যূগ্ম-আহবায়ক আলহাজ্ব দিদারুল আলম, উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য প্রকৌশলী রফিক আহমেদ, যূগ্ম-আহবায়ক মোহাম্মদ নুরুল আবছার, নুর নবী চৌধুরী নুরু, মোহাম্মদ ওসমান আলী, এডভোকেট শেখ শহীদুল হক,মোহাম্মদ জাবেদ, উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সৈয়দ নাছির উদ্দিন, মহরম আলী, আলহাজ্ব মোস্তফা মাহমুদ, সি:যূগ্ম-সদস্য সচিব ও দুবাই শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শারজাহ শাখার সভাপতি সেলিম উদ্দিন খান, দুবাইয়ের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আজিম তালুকদার, আজমান ফোরাম নেতা তছলিম উদ্দিন চৌধুরী, শারজাহ শাখার সাধারন সম্পাদক এস এম মোদাচ্ছের শাহ, আমিরাতের যূগ্ম-সদস্য সচিব শাখাওয়াত হোসেন বকুল, ফৌজিরা ফোরাম নেতা মোহাম্মদ খোরশেদ আলম, রাংগুনিয়া উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ ওসমান, প্রকৌশলী হাসেম,শারজাহ শাখার সি:সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন। 

উক্ত সভায় প্রকৌশলী রফিক সিকদার বলেন, হিংসাত্মক রাজনীতির শিকার শহীদ সালাহ উদ্দীন কাদের চৌধুরী। বাংলাদেশের স্বার্বভৌমত্বের উপড ছোবল মারতে মূলত তাকে হত্যা করা হয়েছে। ষডযন্ত্রকারীদের এই মিশন বাংলার মাটিতে কখনো পূর্ন হবে না। শহীদ সালাহদ্দীন কাদের চৌধুরীর এক এক ফোটা রক্তের বদৌলতে বাংলার জমিনে লক্ষ কোটি সালাউদ্দিনের সৃষ্টি হয়েছ।  এরাই স্বার্বভৌমত্বের অতন্দ্রী প্রহরের দায়িত্ব পালন করবে। 

আলহাজ সৈয়দ আজম উদ্দিন বলেন, বিএনপি স্থায়ী কমিটির প্রাক্তন সদস্য ,সাবেক সফল মন্ত্রী, উপদেষ্টা সহ বিভিন্ন সময়ে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ  দায়িত্বে আসীন ক্ষণজম্মা ও কালজয়ী এক বীর পুরুষ শহীদ সালাহ উদ্দীন কাদের চৌধুরী। 

বিগত ২০১৫ সনে ভারতীয় মদদপুষ্ট আওয়ামী সরকার রাষ্ট্রীয় ভাবে ষডযন্ত্রের করে এক দূ:সাহসিক হত্যাযজ্ঞের মাধ্যমে তাদের সফল মিশন সম্পন্ন করেছিল।  সে হত্যাযজ্ঞে জাতী একজন দেশপ্রেমিক অভিভাবককে হারিয়েছে।  জুডিশিয়াল এই হত্যাকাণ্ডের বিচার বাংলার মাটিতে একদিন হবেই হবে।  সংগঠনের দুবাই শাখার সাধারন সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা মজিবুল হক মন্জু’র সাবলীল পরিচালনায় মোহাম্মদ নিজাম উদ্দীনের কোরান তেলোয়াত ও দুবাইয়ের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ এনামুল হকের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে সভার সূচনা হয়। 

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দুবাইয়ের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আনোয়ার আজিম, লায়ন ওসমান চৌধুরী,দিদারুল হক কাদেরী, সিনিয়র যূগ্ম-সম্পাদক মোহাম্মদ ইদ্রিছ, মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, আবুধাবী ফোরাম নেতা মোহাম্মদ

Abu-Dhabi


21-February

keya