১১:১০ এএম, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, শনিবার | | ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

South Asian College

শত বাধা অপেক্ষা করে রাবিতে ভর্তি হলেন হাতীবান্ধার দিপক

০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৪:৫২ পিএম | মুন্না


আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি : শতবাধা অপেক্ষা করে রাবিতে ভর্তি হলেন লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার গরীব মেধাবী ছাত্র দিপক কুমার।  বুধবার দুপুরে রাবিতে ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগে ভর্তির সকল প্রকার কার্যক্রম সম্পূর্ন করার মধ্য দিয়ে ভর্তি হয় সে। 

এর আগে ‘ভার্সিটিতে ভর্তির জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন’ এই শিরোনামে এসএনএন নিউজে সংবাদ প্রকাশের তার পাশে এসে দাঁড়ান রাবি’র ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়া। তাকে রাবিতে ভর্তির জন্য সকল প্রকার সহযোগিতা করার আশ্বাস দিলে দিপক রাবিতে গিয়ে ছাত্রলীগ সভাপতির সাথে যোগাযোগ করে এবং তার ভর্তি’র সকল কাজ সম্পন্ন করে দেন তিনি। 

এ বিষয়ে দিপকের কাছে জানতে চাইলে সে জানায়, আমি রাবিতে ভর্তি নিয়ে খুব দুঃচিন্তায় ছিলাম।  এসএনএন নিউজের সংবাদ দেখে গোলাম কিবরিয়া ভাই আমার পাশে এসে দাঁড়ায় এবং আমাকে রাবিতে ভর্তি করিয়ে দেয়।  ওনাকে আমার ধন্যবাদ দেয়ার কোনো ভাষা নেই।  ওনার জন্য ভগবানের কাছে প্রার্থনা করি উনি যেন সারাজীবন ভালো ভাবে বেঁচে থাকেন। 

এছাড়া যতদিন আমার লেখাপড়া শেষ হয়নি ততদিনই আমাকে সহযোগিতা করবেন বলে বলেছেন তিনি।  রাবি’র ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার সাথে কথা হলে তিনি জানান, দিপককে রাবিতে ভর্তি করানোর সকল কাজ সম্পুর্ন হয়েছে।  আমি একজন বড় ভাই হিসেবে তার পাশে দাঁড়িয়েছি।  যেটা আমি কেন সকল মানুষের করা দরকার।  দোয়া করি দিপক জীবনে অনেক বড় হবে।  আর এখানে যতদিন থাকবে ততদিনই আমি তাকে আমার নিজের ছোট ভাইয়ের হিসেবে তাকে সহযোগিতা করবো। 

লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার পূর্ব-নওদাবাস গ্রামের মৃত দোলচাঁদ চন্দ্র বর্মনের ছোট ছেলে দিপক কুমার।  তিন বছর বয়সে বাবাকে হারিয়ে অসহায় মা কিরন বালা কাছেই বড় হয় সে।  শত কষ্টের মাঝেও সে এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি সফলতার সাথে পাস করে।  উচ্চ শিক্ষার জন্য এ বছর দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে।  রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধা স্থান অর্জন করে ভর্তির সুযোগ পায়।