৯:২৩ এএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার | | ১১ মুহররম ১৪৪০


'হালাল উপায়ে অর্থ উপার্জন নৈতিক ও আত্মিক উন্নতি সাধনের সোপান'

১০ জানুয়ারী ২০১৮, ০৬:২০ পিএম | জাহিদ


এসএনএন২৪.কম : বায়তুশ শরফ মজলিসুল ওলামা বাংলাদেশের মহাসচিব ষ্টেশন রোড জামে মসজিদের খতিব আল­ামা মামুনুর রশীদ নূরী বলেছেন, ইসলামে অর্থ দর্শন, বাণিজ্য দর্শন ও আদর্শ ব্যাপক ও বিস্তৃত। 

সেটা শুধু মানুষের জৈবিক চাহিদা পুরনের সহায়ক নয় বরং এর মূল উদ্দেশ্য হতে হবে নৈতিকতা অর্জন আর আর্তমানবতার সেবা।  তাই ব্যবসাকে কেবল ধন সম্পদ উপার্জনের হাতিয়ার না বানিয়ে ইবাদত হিসেবে বৈধভাবে সম্পদ উপার্জনের পাশাপাশি নৈতিক ও আত্মিক উন্নতি সাধনের জণ্য প্রচেষ্টা চালাতে হবে। 

মাওলানা নূরী আরো বলেন, দূর্নীতির সর্বগ্রাসী থাবা আহ সমাজের রন্দ্রে রন্দ্রে মহামারির মত ছড়িয়ে পড়েছে যার অর্ন্তমূলে রয়েছে অবৈধ ব্যবসার বিকৃত মানসিকতা ও ক্ষমতার অপব্যবহার।  যেটার চুড়ান্ত পরিনামে সমাজ ও রাস্ট্র ব্যবস্থাকে সমুলে বিনাশ করে দেয়ার একটি ঘৃণিত চক্রান্ত। 

তিনি বলেন, বর্তমান বিশ্বে সুদ, জুয়া, মুনাফাখোরী, মজুদদারী ও প্রতারনামূলক ব্যবসা বাণিজ্য পুজিবাদী অর্থ ব্যবস্থার অন্যতম ভিত্তি।  মাওলানা নুরী বলেন, ব্যবসার মাধ্যে পণ্যে ভেজাল করা, গুদামজাত করে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করা, প্রতারনার আশ্রয় নেয়া, কোন যৌথ ব্যবসাতে খিয়ানত ও বিশ্বাসঘাতকতা করা এবং মূল্য বাড়ানোর উদ্দেশ্যে দালালী করাকে ইসলাম  হারাম করে দিয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, রাসুলে করীম (স:) ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে যে সুন্দর আদর্শ ও নীতিমালা পেশ করেছেন এতে ক্রেতা-বিক্রেতা কোন মহলই ক্ষতিগ্রস্থ হবার আশংকা নেই।  তিনি ব্যবসায়ীদেরকে আল­াহ নির্দেশিত ও রাসুল (স;) প্রদর্শিত নীতিমালার ভিত্তিতে ক্রেতা-বিক্রেতার সম্মতিও সন্তুষ্টির মাধ্যমে ব্যবসা ও বিনিযোগ করে অর্থনৈতিক সমৃৃদ্ধির জন্য দেশকে মাধ্য আয়ের উপযুক্ত করার আহবান জানান। 

মাওলানা মামুনুর রশীদ ৯জানুয়ারী রাতে রিয়াজ উদ্দিন বাজারের পোষ্ট অফিস গলি ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আজিমুশশান নুরানী মাহফিলে প্রধান বক্তার বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। 

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী ও ফাতেহায়ে ইয়াজদহুম উপলক্ষ্যে আয়োজিত মাহফিলে সভাপতিত্বে করেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক ইলিয়াছ আহমদ ভূইয়া।  বিশেষ বক্তা ছিলেন রেলওয়ে কলোনী মসজিদের খতিব মাওলানা জমির উদ্দিন জিহাদী, ও প্রধান মেহমান ছিলেন বার্মা কলোনী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুফতি গোলাম রব্বানী কাশেমী।  বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ বাবুল, মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন প্রমুখ।